শুক্রবার, ১৮ Jun ২০২১, ০৪:০৭ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
চলতি মাসেই চালু হচ্ছে ৫০ মডেল মসজিদ অনলাইনে বিভিন্ন গ্রুপ ও পেইজ এডমিনদের নিয়ে মাশোয়ারার  বাংলাদেশে আরবি বিস্তারের মহানায়ক আল্লামা সুলতান যওক নদভী (দা.বা) দেওবন্দে গেলেন হযরতজী মাওলানা সাদ কান্ধলভী দা.বা. মনসুরপুরীকে নিয়ে সাইয়্যেদ সালমান হুসাইনি নদভির স্মৃতি চারণ আল্লামা ক্বারী উসমান মানসুরপুরীর ইন্তেকালে বিশ্ববরেণ্য আলেমদের শোক আমীরুল হিন্দ আল্লামা ক্বারী উসমান মানসুরপুরীঃ জীবন ও কর্ম আমার একান্ত অভিভাবক থেকে বঞ্চিত হলাম : মাহমুদ মাদানী মানসুরপুরীর ইন্তেকালে জাতীয় কওমী মাদরাসা শিক্ষাবোর্ডের গভীর শোক প্রকাশ দেওবন্দের কার্যনির্বাহী মুহতামিম সাইয়েদ কারী মাওলানা উসমান মানসুরপুরী আর নেই
৬ শর্তে কওমি মাদরাসা খোলার অনুমতি দিলো সরকার

৬ শর্তে কওমি মাদরাসা খোলার অনুমতি দিলো সরকার

৬টি শর্তের ভিত্তিতে কওমি মাদ্রাসার শিক্ষা কার্যক্রম শুরু ও পরীক্ষা নেওয়ার অনুমতি দিয়েছে সরকার।

আজ সোমবার (২৪ আগস্ট) শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে জারি করা এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, বেফাকুল মাদারিসিদ্দীনিয়্যা বাংলাদেশের আবেদনের প্রেক্ষিতে স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে অনুসরণ নিশ্চিত করে নিম্নবর্ণিত শর্তে (প্রয়োজনে স্বাস্থ্য বিভাগের মনিটরিংয়ের মাধ্যমে) বাংলাদেশের সকল কওমি মাদ্রাসা সমূহের কিতাব বিভাগের শিক্ষা কার্যক্রম শুরু ও পরীক্ষা গ্রহণের অনুমতি দেওয়া হল।

যদিও প্রজ্ঞাপনের শুরুতে বলা হয়েছে, ‘স্বাস্থ্যবিধি যথাযথ অনুসরণ নিশ্চিত করে নিম্নে বর্ণিত শর্তে (প্রয়োজনে স্বাস্থ্য বিভাগের মনিটরিংয়ের মাধ্যমে) বেফাকুল মাদারিসিদ্দীনিয়্যা বাংলাদেশ (জাতীয় দ্বীনী মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ড বাংলাদেশ) এর কওমী মাদরাসাসমূহের কিতাব বিভাগের শিক্ষা কার্যক্রম শুরু ও পরীক্ষা গ্রহণের অনুমতি নির্দেশক্রমে প্রদান করা হলো।’

এ ঘোষণা থেকে শুধু একটি বোর্ডের মাদরাসার কিতাব বিভাগ খোলার বিষয়ে ধোঁয়াশা ও বিতর্ক সৃষ্টি হলে তাবলীগ নিউজের  পক্ষ থেকে কওমী মাদরাসাসমূহের সম্মিলিত শিক্ষাবোর্ড আলহাইআতুল উলয়া লিল-জামিআতিল কওমিয়া বাংলাদেশের একাধিক সদস্যের  সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা জানান, মূলত একটি বোর্ডের (জাতীয় দ্বীনি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড) কর্তৃপক্ষের আবেদনের প্রেক্ষিতে প্রজ্ঞাপনে তাদের মাদরাসাগুলোর কিতাব বিভাগ খোলার অনুমতির কথা লেখা হয়েছে। কিন্তু বিতরণের তালিকায় বাংলাদেশ কওমী মাদরাসা শিক্ষাবোর্ডকেও উল্লেখ করা হয়েছে। তাই বেফাকসহ কওমী মাদরাসার সকল বোর্ডের ক্ষেত্রেই এ অনুমোদন প্রযোজ্য।

(এর আগে সোমবার কওমী মাদরাসার শুধু পরীক্ষার অনুমতি বিষয়ে সচিবালয়ে মন্ত্রিসভা বৈঠকের ব্রিফিং দিয়েছিলেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। ঐসময় পরীক্ষা নেয়ার অনুমতি দেয়া হলেও কিতাব বিভাগে ক্লাস চালুর অনুমতি দেয়নি সরকার।)

যেসব স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ নিশ্চিত করার শর্ত দেওয়া হয়েছে :  

. প্রত্যেক শিক্ষার্থীর মাস্ক, হ্যান্ডগ্লাভস ও মাথায় নিরাপত্তা টুপি পরা আবশ্যক।

. মাদ্রাসায় প্রবেশের পূর্বে মূল প্রবেশদ্বারে স্যানিটাইজিং করতে হবে।

. শিক্ষার্থীরা নিজ নিজ কক্ষে অবস্থান করবে। বিক্ষিপ্তভাবে এদিকসেদিক চলাফেরা করবে না।

. একজন শিক্ষার্থী থেকে অন্য শিক্ষার্থী কমপক্ষে তিন ফুট দূরত্ব অবস্থান করবে।

৫. কোভিড-১৯ এর কারণে কোলাকুলি ও মুসাফাহা করবে না।

. শিক্ষকগণ ও কর্মচারীগণও একইভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবেন।

 

 

 

উল্লেখ্য, গত ১২ জুলাই থেকে দেশের সব হাফিজিয়া মাদ্রাসা চালুর অনুমতি দিয়েছে সরকার। ৮ জুলাই ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় এ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি জারি করে। সেখানে বলা হয়, এসব মাদ্রাসাকে স্বাস্থ্য অধিদফতরের স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করতে হবে। এরও আগে ১ জুন দেশের কওমি মাদ্রাসায় ছাত্রছাত্রী ভর্তির কার্যক্রম পরিচালনার লক্ষ্যে স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে অফিস খোলার অনুমতি দিয়েছিল সরকার। সে ধারাবাহিকতায় কুরবানির আগে মাদ্রাসার অন্য বিভাগগুলো খোলারও অনুমতি চাওয়া হয়েছিল। কিন্তু তখন অনুমতি দেওয়া হয়নি।

কওমী মাদরাসার সম্মিলিত শিক্ষাবোর্ড আল হাইআতুল উলয়া লিল জামিয়াতিল কওমিয়ার অধিনে থাকা কওমী মাদরাসার একটি বোর্ড ‘জাতীয় দ্বীনি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের’ উধ্বর্তন চার সদস্য তথা এ বোর্ডের সহ-সভাপতি ড. মাওলানা মুশতাক আহমদ ও মাওলানা ইয়াহইয়া মাহমুদ এবং বোর্ডের মহাসচিব মুফতি মোহাম্মদ আলী এবং মাওলানা মুজিবুর রহমানসহ কওমি আলেমদের একটি প্রতিনিধি দল গত ১৭ আগস্ট মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলামের সাথে বৈঠক করেন এবং কওমী মাদরাসাগুলো খুলে দেওয়ার অনুরোধ জানান। এর ভিত্তিতে আজ সরকার এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করলেন।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, বেফাকুল মাদারিসিদ্দীনিয়্যা বাংলাদেশের আবেদনের প্রেক্ষিতে স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে অনুসরণ নিশ্চিত করে (প্রয়োজনে স্বাস্থ্য বিভাগের মনিটরিংয়ের মাধ্যমে) বাংলাদেশের সব কওমি মাদ্রাসা সমূহের কিতাব বিভাগের শিক্ষা কার্যক্রম শুরু ও পরীক্ষা গ্রহণের অনুমতি দেয়া হল।
২০১৭ সালের ১১ ই এপ্রিল কওমি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের সম্মানিত চেয়ারম্যান আল্লামা শাহ আহমদ শফী হাফিঃ ও ক্বওমী মাদ্রাসা শিক্ষা কর্তৃপক্ষ আইন পর্যালোচনা কমিটির আহবায়ক মওলানা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদসহ কয়েকশ আলেমের উপস্থিতিতে গণভবনে এক অনুষ্ঠানে কওমির সনদকে স্বীকৃতি দেওয়ার ঘোষণা দেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে এ বিষয়ে জাতীয় সংসদে আইন পাস করা হয়।

Facebook Comment





© All rights reserved © 2020 TabligNewsBD.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com