বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ০২:৫৩ পূর্বাহ্ন

তোমার জন্য ভালবাসা হে প্রিয়তম…

তোমার জন্য ভালবাসা হে প্রিয়তম…

ইয়া রাসুলাল্লাহ! আপনি তখন হেরা পর্বতের গুহায় বসে ধ্যান করতেন। কত উঁচু সে পাহাড়। আমাদের মা খাদিজাতুল কোবরা পঞ্চান্ন বছর বয়সেও সেই উঁচু পাহাড় বেয়ে আপনাকে খাবার পানি দিয়ে আসতেন। তিনি এতটুকুও ক্লান্তি অনুভব করতেননা। কারণ তিনি আপনাকে ভালবাসতেন তাঁর সমগ্র সত্তা দিয়ে। রাদ্বিয়াল্লাহু আনহা।
ইয়া রাসুলাল্লাহ! তখন আপনি সবেমাত্র প্রকাশ্যে দাওয়াত দেয়া শুরু করেছেন। একদিন বাজারের মাঝখানে পৌত্তলিকরা আপনার গলায় কাপড় পেঁচিয়ে টান দিলো। আপনার নিঃশ্বাস বন্ধ হয়ে যাবার উপক্রম হয়। আবু বকর ইবনুল কুহাফা তড়িগড়ি করে ছুটে এসে আপনাকে তাদের হাত থেকে ছাড়িয়ে নেন। তিনি এতটুকু তোয়াক্কা করেননি যদি তাঁকে মেরে ফেলে! কারণ তিনি তাঁর সমগ্র সত্তা দিয়ে আপনাকে ভালোবাসতেন। রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু।
ইয়া রাসুলাল্লাহ! নবুওয়তের প্রথম দিকে প্রকাশ্যে দাওয়াতের সূচনা করার পর একবার আপনি কাবাচত্বরে গেলেন। আপনার দাওয়াতে ক্ষেপে থাকা কুরাইশ মোড়লরা আপনার সাথে গোলযোগ শুরু করে দিলো। হৈ চৈ দেখে আপনাকে বাঁচাতে এসে হারিস ইবনে উবাই কতল হয়ে গেলো। আপনার জন্য নিজের তপ্ত খুন ঝরালো। কেন? কারণ হারিস আপনাকে ভালোবাসতো। রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু।
ইয়া রাসুলাল্লাহ! আপনার কথায় যখন নেতৃস্থানীয়রা কানই দিচ্ছিলোনা তখন বারো/তের বছরের কিশোর আলী বুঝে না বুঝেই আপনাকে সায় দিলো। আপনার পক্ষ নিলো। এমনকি হিজরতের রাতে আপনার ঘরের চারপাশে আপনার রক্ত লোলুপ একদল খুনীদের তলোয়ারের নীচেও আপনার বিছানায় নিশ্চিন্তে ঘুমিয়ে পড়লো। কেবল আপনি আদেশ দিয়েছেন বলেই। আলী ইবনু আবি তালিবকে সেদিন হত্যা করে ফেললেও বিন্দুমাত্র শংকিত হতেননা তিনি। কারণ তিনি আপনাকে নিজের প্রাণের চেয়েও অধিক ভালোবাসতেন। রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু।
ইয়া রাসুলাল্লাহ! সাওর পর্বতের গুহায় ছিদ্দীকে আকবরের দেয়া কুরবানীর সাথে সমগ্র উম্মতের কুরবানী একসাথে মেলালেও কি সমান হবে? আহা! সাপের দংশনেও উঃ শব্দ করেননি। নড়াচড়াও করেননি। পাছে আপনার ঘুমের ব্যাঘাত হবে। আপনি তাঁর উরুতে মাথা রেখে শুয়েছিলেন। এই ভালোবাসার ছিটেফোঁটাও কি আমরা বাসতে পেরেছি?
ইয়া রাসুলাল্লাহ! উহুদের ময়দানে তালহার পিঠ তিরের ঘায়ে ঝাঁঝরা হয়ে গেছে আপনাকে বাঁচাতে গিয়ে। তবুও আপনাকে পিঠ দিয়ে দাঁড়ায়নি। কারণ এতে আপনার অসম্মান হবে। আপনার দিকে মুখ করে পিঠে হাসিমুখে তিরের ঘা বরণ করে নিয়েছেন হাসিমুখে। রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু।
হে প্রিয়! আমি কপালপোড়া চৌদ্দশ বছর পর জন্মেছি। না দেখেছি দাওয়াতের রাস্তায় আপনার অবিচলতা না দেখেছি তায়েফের রাস্তায় পাথরের আঘাতে ক্ষত বিক্ষত হয়েও আপনার শান্ত সোম্য চেহারা। দেখিনি বদরে আপনার সিজদার ফরিয়াদ। উহুদে আপনার অটল গাম্ভীর্য দেখার সৌভাগ্য অর্জন করিনি। খন্দকে পেটে পাথর বেঁধে আপনার সাথে মাটি কাটায় শরিক হতে পারিনি। হুনায়নে আপনার অনড়চিত্তে বলা সে দীপ্ত ঘোষণা শুনিনি। কেবল পড়েছি। আপনি কি বজ্র নিনাদ কন্ঠেই না বলেছেন!
أنا النبي لا كذب-أنا ابن عبد المطلب
আমিই নবী! তাতে কোন মিথ্যা নেই-
আমিই আবদুল মুত্তালিবের বংশধর।
হে প্রিয়তম! আপনাকে দেখিনি। আপনার সামনে বসে আপনার মোবারক মুখনিঃসৃত বাণীতে আমার শূন্য হৃদয় পূর্ণ করতে পারিনি। আপনার ধুলিমাখা পথের ঘ্রাণ পাইনি। তবে আশা রাখি হাউযের পাশে দেখা হবে। সেদিন যদি ভালোবাসার দাবী নিয়ে যাই আমি গুনাহগারকে ফিরিয়ে দেবেননা তো?
ইয়া রাসুলাল্লাহ! আপনাকে ভালোবাসি। আমার সকল আকাঙ্ক্ষা আপনাতে পর্যবসিত। আমার সকল চাওয়া পাওয়া আপনার পদতলে সমর্পিত। সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম।
Facebook Comment





© All rights reserved © 2020 TabligNewsBD.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com