রবিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ০৩:৪৩ অপরাহ্ন

জমহুর আলেমগণ মাওলানা সাদ সাহেবের সাথেই আছেন

জমহুর আলেমগণ মাওলানা সাদ সাহেবের সাথেই আছেন

পৃথিবীর নানান দেশে তাঁর মজলিসে যে পরিমান আলেম -উলামাগন অংশ গ্রহন করে থাকেন তা নজির বিহীন। পৃথিবীর  চার মাজহাবের জমহুর আলেমগণ মাওলানা সাদ সাহেবের সাথেই আছেন।হাজারো উলামা নিজামউদ্দিনের তত্বাবধানে মাওলানা সাদ কান্ধালভীর সাথে তার আনুগত্যে কাজ করছেন।

রমজান ১৮ইং এর কয়েকদিন পূর্বে দারুল উলুম দেওবন্দ (ওয়াকফ) এর নতুন ভবন উদ্বোধন করেন মাওলানা সাদদ কান্ধালভি। সাহারানপুর মাদরাসা, পাকিস্তানের জামেয়া ফারুকীয়া, আফ্রিকার জামেয়া দারুল উলুম জাকারিয়ার মতো বড়বড় কওমি মাদরাসার সবকের ইফতিতা এখনো হযরতজী কে দিয়ে করানো হয়। ভারতের দ্বীতিয় বৃহত্তম দ্বীনী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সাহরানপুর মাদরাসার খতমে বোখারির সবক নেন। এমনকী মদীনা মনওয়ারাতে হজ্ব ও উমরার সময় তার মজলিসে নিয়মিত আরব ও আজমের বড়বড় আলেমরা তার কাছ থেকে ইলমি ইস্তেফাদা নিয়ে থাকেন। মাত্র কয়েক মাস আগে ভারতের দিল্লীর আওরঙ্গবাদে তাবলীগের আলমি ইজতেমা অনুষ্টিত হয়ে গেল সেখানে ৫০/৬০হাজার আকাবিরে দেওন্দের উলামাগন উপস্থিত ছিলেন তার বয়ান শুনতে।

তিনি সব সময়, তার বয়ানে গুরুত্বের সাথে বলে থাকেন,”আমাদের আলেমদের সঙ্গে সাক্ষাতকে, যিয়ারতকে ইবাদত মনে করা উচিত। কারণ আলেমদের মজলিসে অংশ নেওয়া সবচেয়ে বড় প্রয়োজনীয় বিষয় মনে করা জরুরি। কারণ মাসআলা-মাসাঈল আলেমদের কাছ থেকেই শিখতে হবে।আমাদের গাশত, বয়ান, মোলাকাতসহ সব কাজের মূল উদ্দেশ্য হলো, উম্মতকে ইলমের প্রতি আকৃষ্ট করা। সাধারণ মানুষকে আলেমদের সঙ্গে সম্পৃক্ত করা। নিজের সন্তানাদিকে এ উদ্দেশ্যেই মাদরাসায় ভর্তি করাতে হবে যে, ইলমের তালিম মাদরাসাতেই হয়। মাদরাসার এই শিক্ষাই হলো ইলম। দুনিয়ার বিভিন্ন জ্ঞান-বিজ্ঞানকে বড় মনে করে এগুলো পড়ানো এটা মূর্খতা ছাড়া আর কী? সাদরাসা হল মানুষ গড়ার কেন্দ্র। মানুষ গড়ার চেয়ে বড় কোন খেদমত দুনিয়াতে নেই।”

হাজারো উলামা নিজামউদ্দিনের তত্বাবধানে মাওলানা সাদ কান্ধালভীর সাথে তার আনুগত্যে কাজ করছেনl তাদের সকলের নাম লিখতে হলে ২ দিনের বেশী দরকারl এখানে শুধু তাদের নাম দেয়া হলো; যারা হজরতজী ইলিয়াস রহ হতে শুরু করে হজরতজী হাফি পর্যন্ত সাথী হয়ে বিশ্ব ব্যাপি আজো কাজ পরিচালনা করে যাচ্ছেন।তাদের। মধ্যে বিশ্বব্যাপি পরিচিত কয়েকজন হলেন—

1-হজরত মিয়াজি মাওলানা ফুল হাফিযাহুল্লাহ মেওয়াত ( হজরতজী ইলিয়াস রহ এর যামানা কাজে লেগে আছেন এবং এখনো নিজামউদ্দিনের সাথে আছেন )

2-হজরত মিয়াজি আজমত সাহেব হাফিযাহুল্লাহ। হজরতজী ইউসুফ সাহেব রহ হতে ৪০ বছরের মত কাজে লেগে আছেন এবং ৪০ বারের বেশী ৪ মাস করে পায়ে দল জামাতে আল্লাহর রাস্তায় সময় লাগিয়েছেন)

৩- মাওলানা ইয়াকুব সাহেব হাফিযাহুল্লাহ ( যিনি হজরতজী ইউসুফ সাহেব রহ সমখয় হতে মেহনতে লেগে আছেন ,মাদারাসায়ে কাশিফুল উলুমতে শিক্ষিকতা করতেন )

৪- শায়েখ ইউসুফ সাহেব হাফিযাহুল্লাহ , শ্রীলংকা ( ১৯৬২ হতে নিজামউদ্দিনে আছেন এবং আমানত রুমের জিম্মাদারি পালন করতেছেনl ১ সাল আল্লাহর রাস্তায় লাগিয়ে মাদরাসায় পড়াশোনা শুরু করেন পরে আলেম হয়ে ফারেগ হন এবং আবার ৩ সাল আল্লাহর রাস্তায় লাগান হজরতজী ইউসুফ সাহেব রহ জামানা হতে )

5-মুফতি আব্দুল সাওার হাফিযাহুল্লাহ ( হজরতজি ইউসুফ সাহেব রহ হতে এখনো কাজ করে যাচ্চেন এবং কাশিফুল উলুমে বড় কিতাব পড়াচ্ছেন )

6-শায়েখ আলাউদ্দিন হাফিযাহুল্লাহ ,মেওয়াত ( হজরতজী ইউসুফ সাহেব রহ হতে এখনো নিজামউদ্দিনে জুরে কাজ করে যাচ্চেন )

৭- শায়েখ ইলিয়াস বাড়াবাংকি হাফিযাহুল্লাহ ( হজরতজী ইউসুফ সাহেব রহ হতে এখনো নিজামউদ্দিনে জুরে কাজ করে যাচ্ছেন )

৮- প্রফেসর আব্দুল আলিম হাফিযাহুল্লাহ (( হজরতজী ইউসুফ সাহেব রহ হতে এখনো নিজামউদ্দিনে জুরে কাজ করে যাচ্ছেন)

৯- শায়েখ আলী মিয়া নদভী রহ. খাছ শাগরিদ মাও গাজাইল সাব হাফিযাহুল্লাহ ৪০ বছর ধরে মার্কাজে মুকিম এবং আরব খিওায় বয়ান করেন! হজরত এনামুল হক রহ সাথী )
.
১০- মাও শামসুর রহমান হাফি (( হজরতজী এনামুল হাসান সাহেব রহ হতে এখনো নিজামউদ্দিনে জুড়ে কাজ করে যাচ্ছেন)

১১- মাও আব্দুল হান্নান সাহেব হাফি (( হজরতজী এনামুল হাসান সাহেব রহ হতে এখনো নিজামউদ্দিনে জুড়ে কাজ করে যাচ্ছেন)

১২- শাইইখুল হাদিস আব্দুর রশীদ হাফি (মাও উবায়দুল্লাহ রহ এর সন্তান ) (( হজরতজী এনামুল হাসান সাহেব রহ হতে এখনো নিজামউদ্দিনে জুড়ে কাজ করে যাচ্ছেন).

13– মুফতি আব্দুর রহীম হাফি (( হজরতজী এনামুল হাসান সাহেব রহ হতে এখনো নিজামউদ্দিনে জুরে কাজ করে যাচ্ছেন)
.
14- – মাও নাফিস সাহেব হাফি (( হজরতজী এনামুল হাসান সাহেব রহ হতে এখনো নিজামউদ্দিনে জুরে কাজ করে যাচ্ছেন)

15– বিশ্ব বিখ্যাত আলেম ইউসুফ সালানি রহ এর সন্তান মাও ইয়াকুব হাফি (( হজরতজী এনামুল হাসান সাহেব রহ হতে এখনো নিজামউদ্দিনে জুরে কাজ করে যাচ্ছেন)

16– মাও জামশিদ হাফি (( মার্কাজ নিজামউদ্দিনের মাশোয়ারায় জুরে কাজ করে যাচ্ছেন)

17– মুফতি শরিফ হাফি (( মার্কাজ নিজামউদ্দিনের মাশোয়ারায় জুরে কাজ করে যাচ্ছেন)

18- মুফতি শওকত সাহেব হাফিযাহুল্লাহ (মার্কাজ নিজামউদ্দিনে মাশোয়ারায় কাজ করছেন)

19- মুফতি শামিম সাহেব হাফি (( মার্কাজ নিজামউদ্দিনের মাশোয়ারায় জুরে কাজ করে যাচ্ছেন)

20- মাও যুয়ারুল হাসান সাহেব হাফি ( মার্কাজ নিজামউজদিনেদ তাকাজা পুরো করছেন )

21- মাও আসাদুল্লাহ সাহেব হাফিযাহুল্লাহ ( মার্কাজ নিজামউদ্দিনের তাকাজায় কাজ করতেছেন )

পরবর্তীতে কুল হিন্দের প্রায় ১৩ -15 হাজার উলামা হতে আরো লম্বা একটা নাম প্রকাশ করবোl ইনশাআল্লাহ

Facebook Comment





© All rights reserved © 2019 Tablignewsbd.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com
error: Content is protected !!