শনিবার, ১৯ Jun ২০২১, ০৮:৫৭ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
চলতি মাসেই চালু হচ্ছে ৫০ মডেল মসজিদ অনলাইনে বিভিন্ন গ্রুপ ও পেইজ এডমিনদের নিয়ে মাশোয়ারার  বাংলাদেশে আরবি বিস্তারের মহানায়ক আল্লামা সুলতান যওক নদভী (দা.বা) দেওবন্দে গেলেন হযরতজী মাওলানা সাদ কান্ধলভী দা.বা. মনসুরপুরীকে নিয়ে সাইয়্যেদ সালমান হুসাইনি নদভির স্মৃতি চারণ আল্লামা ক্বারী উসমান মানসুরপুরীর ইন্তেকালে বিশ্ববরেণ্য আলেমদের শোক আমীরুল হিন্দ আল্লামা ক্বারী উসমান মানসুরপুরীঃ জীবন ও কর্ম আমার একান্ত অভিভাবক থেকে বঞ্চিত হলাম : মাহমুদ মাদানী মানসুরপুরীর ইন্তেকালে জাতীয় কওমী মাদরাসা শিক্ষাবোর্ডের গভীর শোক প্রকাশ দেওবন্দের কার্যনির্বাহী মুহতামিম সাইয়েদ কারী মাওলানা উসমান মানসুরপুরী আর নেই
রোজার প্রতিদান আল্লাহ নিজেই দিবেন

রোজার প্রতিদান আল্লাহ নিজেই দিবেন

রোজার প্রতিদান আল্লাহ নিজেই দিবেন

মাওলানা সৈয়দ আনোয়ার আবদুল্লাহ

রমজান মহান রাব্বে কারিমের এক মহা নেয়ামত।
রমযলজানুল মুবারক বান্দার জন্য আল্লাহ তাআলার অনেক বড় দান। আল্লাহ তাআলার নিকট বান্দার সকল আমল একরকম আর রোজর হিসাব ভিন্ন রকম। আল্লাহর নিকট বান্দা আমলের প্রতিদান লাভ করবে। তবে রোজার প্রতিদান আল্লাহ নিজে বান্দাকে দান করবেন। একজন মুমিন বান্দার জন্য এর চেয়ে বড় চাওয়া ও পাওয়া আর কী হতে পারে।

আল্লাহ কেমন প্রতিদান দেবেন তা আল্লাহ্ই ভালো জানেন। রাহমানুর রাহিমের দেয়াটি হবে তার বড়ত্ব ও শান মোতাবেক। আমরা শুধু বুঝি, যে প্রতিদান আল্লাহ বিশেষভাবে দেবেন তা তাঁর শান মোতাবেক দেবেন। রোজার ক্ষেত্রে বান্দার জন্য আল্লাহর তরফ থেকে এত বড় সম্মান ও পুরস্কার এ জন্য যে, রোযা সাধারণত আল্লাহ জন্যই হয়ে থাকে। অন্যান্য আমলের তুলনায় রোজার ক্ষেত্রে রিয়ার আশঙ্কাও কম থাকে। সেজন্যই আল্লাহ বলেছেন, রোযা আমার জন্য। আর এজন্যই আল্লাহ নিজে এর প্রতিদান দান করবেন।

রমাজানুল কারিমে রোজাদারের জন্য এত বড় পুরস্কার এজন্যও যে,রাব্বে কারিম অন্যান্য সময় তার জন্য যা হালাল করেছেন রোযা অবস্থায় দিনের বেলা কেবল আল্লাহর এসব হালাল বিষয়কেও তার আনুগত্যের কারণে হারাম করেছেন। সে পানাহার ও বৈধ জৈবিক খাহেশ থেকে কেবল আল্লাহ তাআলার হুকুম পালনের লক্ষ্যে এবং একমাত্র তাঁর সন্তুষ্টি অর্জনের জন্য বিরত থাকলো। অথচ এগুলো এমন বিষয়, একমাত্র আল্লাহরবভয়, তাঁর প্রতি বিশ্বাস এবং তাঁর সন্তুষ্টি অর্জনের প্রত্যাশা ব্যতীত এ থেকে নিবৃত্ত থাকা সম্ভব নয়।ইচ্ছে করলে একাকী ঘরে সে রোজা ভঙ্গ করতে পারে কিন্তু আল্লাহর জন্য তা করেণা। এটি প্রেম ও ভালবাসার বহিঃপ্রকাশ। আল্লাহ এর প্রতিদান সেরকমভাবেই কেয়ামতের দিন বহিঃপ্রকাশ করবেন।

প্রচন্ড গরমে পাপাসিত বান্দা কিন্তু গোপনেও একডুক পানি দিয়ে গলা ভিজায় না। খুব তৃষ্ণায় কাতর তবুও মালিকের হুকুম লঙ্গন করে না। নামাযের জন্য অযু করছি। কুলি করার জন্য মুখে পানি দিলাম। এ পানি মুখ থেকে বের না করে গিলে ফেললেও দেখার ও বলার কেউ নেই। তবুও মুখের পানি গলার ভেতর না নিয়ে বাইরে ফেলে দিচ্ছি। কারণ? আমার এ বিরত থাকা একমাত্র আল্লাহর জন্য। এজন্য আল্লাহ নিজেই এর বিনিময় দান করবেন।

সহীহ মুসলিমের বর্ণনায় এসেছে, আল্লাহ তাআলা বলেন, সকল আমলের সওয়াব তো (একরকম) নির্ধারিত। অর্থাৎ প্রতিটি নেকী দশ থেকে সাতশ গুণ বাড়িয়ে দেওয়া হবে। তবে রোযার বিষয়টি এর ব্যতিক্রম। কেননা রোযা একমাত্র আল্লাহ্র জন্যই হয়ে থাকে। আর তাই এর প্রতিদান আল্লাহ নিজেই দেবেন।

তো যে আমলের প্রতিদান মহান রাব্বুল আলামীন নিজে দান করবেন সেই প্রতিদান কেমন মহান হতে পারে! আর এমন আমলের প্রতি একজন মুমিনের আগ্রহ কত প্রবল থাকতে পারে!! আল্লাহ তাআলা আমাদেরকে সেই অনুভূতি জাগরূক রেখে সিয়াম সাধনার তাওফীক দান করুন আমীন।

Facebook Comment





© All rights reserved © 2020 TabligNewsBD.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com