বুধবার, ০৩ Jun ২০২০, ০৮:২১ পূর্বাহ্ন

তাবলীগ নিয়ে আজ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনালয়ের সিদ্ধান্ত

তাবলীগ নিয়ে আজ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনালয়ের সিদ্ধান্ত

তাবলীগ নিউজ বিডিডটকম : রাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, আগামী এক মাস টঙ্গী বিশ্ব ইজতেমা মাঠ প্রশাসনের দখলে থাকবে। এ সময়ের মধ্যে সেখানে কোনো অনুষ্ঠান হবে না।

 

শনিবার বিকালে সচিবালয়ে বিবদমান তাবলিগ জামাতের দুই পক্ষ নিয়ে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ কথা জানান তিনি।

 

মন্ত্রী বলেন, আপাতত কোনো ধরনের প্রোগ্রাম থেকে দুই পক্ষকেই বিরত থাকতে হবে। আগামী নির্বাচনের পর জোড় ও ইজতেমার নতুন তারিখ ঘোষণা করা হবে।

 

এ ছাড়াও আজকের সংঘর্ষের ঘটনায় ফৌজদারি মামলা হবে বলেও জানান তিনি। এবং সংঘর্ষের ঘটনায় তদন্তসাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

শনিবার বিকেল ৫ টার দিকে তাবলিগ জামাতের দুপক্ষকে নিয়ে বৈঠকে বসেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

 

এতে উপস্থিত ছিলেন তাবলিগের উপদেষ্টা মাওলানা ফরিদ উদ্দীন মাসঊদ,  তাবলীগের মূলধারার শূরা সদস্য সৈয়দ ওয়াসিফুল ইসলাম, মূলধারার শূরা সদস্য মাওলানা মোশাররফ হোসেন, মুফতী বুরহান, আরিফ রেজা, ব্যারিষ্টার  এমদাদ আহমদ। অপরপক্ষে ছিলেন হাফেজ জুবায়ের আহমদ, মাও আশরাফ আলী, মাও মাহমুদুল হাসান, মাওলানা আবদুল কুদ্দুস।

 

এ ছাড়া পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়াসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

 

 

উল্লেখ্য যে, টঙ্গীর  ময়দানে আজ মূলধারার তাবলীগের ৫দিনের জোড়ে বাঁধা  দিতে কথিত জমহুর আলেমরা অস্ত্র  হিসাবে ব্যাবহার করছেন মাদরাসার ছোট ছোট ছেলেদের।

 

আজ সকালে তাবলীগের মূলধারার লক্ষ লক্ষ সাথী ইজতেমার মাঠে গেলে প্রতিটি ফটকে নাবালেক শিশু কিশোর মাদরাসার ছাত্রদের লাটি হাতে দেখা যায়। এভাবে শিশু কিশোরদের ডাল হিসাবে ব্যবহার করা কতোটা  অন্যায় এমন প্রশ্ন লাখো ধর্মপ্রাণ মুসল্লীদের।

 

তারা বলছেন,মাদরাসার ছাত্রদের চাপ দিয়ে সাম্প্রদায়িক,সংঘাতময় ও ধর্মীয় বিতর্কিত কাজে  বারবার ব্যাবহার করা হচ্ছে। এমনকি আামাদের কলিজার টুকরো সন্তানদের হাতে লাঠি তুলে দিয়ে,কখনো কাফনের কাপড় পড়িয়ে সংঘর্ষে নামিয়ে দিচ্ছেন।  ফলে ক্রমশ তারা উগ্র, অবাধ্য,ও সহিংস হয়ে উঠছে বা তাদের মন মানসিকতাকে পরোক্ষভাবে উগ্রপন্থী করে তোলা হচ্ছে। ফলে আমরা আমাদের সন্তসনদের ভবিষ্যৎ নিয়ে ক্রমশ উদ্বিগ্ন হয়ে উঠছি।

 

এছাড়া নানান সংঘাতের মুহূর্তে  পুঁজি হিসেবে বারবার মাদরাসার অবুঝ  কোমলমতি ছাত্রদের সামনে ঠেলে দেয়া হচ্ছে। যেমন, মসজিদ দখল, ইজতেমার মাঠ দখল, দিনের পর দিন ক্লাস বন্ধ করে সাম্প্রদায়িক উস্কানিমূলক ওজাহাতি জোড়ে ব্যাবহার করা এখনি আইন করে বন্ধ করা দরকার।

 

গতকয়েকদিন ধরে ঢাকার অসংখ্য মাদরাসার ছাত্র দিয়ে টঙ্গীর  ময়দান দখল রাখা হয় জঙ্গি  স্টাইলে। এপেক্ষিতে গত মঙ্গলবার  সাংবাদিক সম্মেলন করে মূলধারার তাবলীগের সাথীরা জানান, বিগত কয়েকদিন  যাবৎ টঙ্গীর  ময়দান পাহারার নামে ঢাকা ও আশপাশের জেলা থেকে মাদরাসার কোমলমতি ছাত্রদের লাটিসোটাসহ ময়দানে জড়ো করা হয়েছে।

 

ধর্মীয় সংঘাতময় কাজে এভাবে শিশু কিশোরদের ব্যবহার করা সামাজিক, রাষ্ট্রীয়, মানবিক ও শিশু আইনে মারাত্বক অপরাধ ও অন্যায় গর্হিত কাজ বলে বিবেচিত। ৫দিনের তিনচিল্লার সাথীদের জেড়ের দিন কোনভাবেই টঙ্গীতে ছাত্রদের থাকার সুযোগ নেই। থেকে সারা দেশের  তাবলীগের সাথীরা যথানিয়মে টঙ্গীর ময়দানে পৌছবে।

 

পরে আজ দুপুরের দিকে টঙ্গীর বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে মূলধারার তাবলীগ জামাতের জোড়ে বাধা প্রদান ও তাবলীগের সাথীদের উপর মাদরাসার ছাত্রদের দারালো অস্ত্রের  আঘাতে মোঃ ইসমাইল মন্ডল মন্ডল (৭০) নামে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার রামপাল ইউনিয়নের নিজামুদ্দিনের অনুসারী একজন তাবলীগের মুরুব্বী নিহত হয়েছেন বলে প্রাথমিক তথ্যে জানা গেছে।

 

এ ঘটনায় উভয় গ্রুপের কমপক্ষে ৩ শতাধিক মুসল্লি আহত হয়েছেন। আহতদের টঙ্গী হাসপাতালসহ স্থানীয় চিকিৎসাকেন্দ্রে এবং গুরুতর আহতদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে।

Facebook Comment





© All rights reserved © 2020 TabligNewsBD.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com
error: Content is protected !!