বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৩:৩২ পূর্বাহ্ন

ভারতে ৯০হাজার আলেমসহ মাওলানা সাদ কান্ধলভী বুলন্দ শহর ইজতেমায় দোয়া করলেন

ভারতে ৯০হাজার আলেমসহ মাওলানা সাদ কান্ধলভী বুলন্দ শহর ইজতেমায় দোয়া করলেন

তাবলীগ নিউজ বিডিডটকম |  তাবলিগ জামাতের আলমী মারকাজ দিল্লীর নিজামুদ্দীনের পুর্ব ঘোষণা অনুযায়ী এবারের বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্টিত হয়ে গেল ভারতের উত্তর প্রদেশের বুলন্দ শহর জিলায়। প্রায় দুই কোটির অধিক মুসলিম জমায়েতে এই ইজতেমার মধ্যে ভারতের সকল রাজ্যের মুসল্লিরা অংশ গ্রহণ করেন। বিশ্বের প্রায় একশ ত্রিশটি দেশের বিদেশী মুসল্লী তাতে অংশগ্রহন করেন। প্রায় লাক্ষাধিক তিন চিল্লা ,চিল্লা, সাল ,ও বিদেশী জামাত খুরুজের জন্য তৈরী হয়। ইজতেমার শেষ দিন বিকেলে উলামাদের বিশেষ জোড় অনুষ্টিত হয়। প্রায় নব্বই হাজার উলামা এই জোড়ে অংশগ্রহণ করেন। বিশ্ব ইজতেমাকে কেন্দ্র করে গোটা উত্তর প্রদেশে এক উৎসব মুখর পরিবেশ বিরাজ করছিলো। ভারত সরকারের তরফে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা বাহিনী মোতায়েন করার পাশাপাশি প্রায় পাচ লক্ষ তাবলিগী সেচ্ছাসেবক নিয়োগ করা হয়েছিলো। ক্বায়ীদে মিল্লত, সর্ব ভারতীয় জমিয়ত উলামায়ে হিন্দের মহাসচিব সৈয়দ মওঃ মাহমুদ মদনীর নির্দেশ মর্মে বুলন্দ শহর শাখা জমিয়ত মুসল্লিদের জন্য বিশেষ মেডিকেল ক্যম্প,এম্বোল্যণ্স ও পথচারীদের জন্য জল পানের ব্যবস্থা করে। ভারতীয় রেল মন্ত্রনালয় ইজতেমার মুসল্লিদের সুবিধার জন্য বাড়তী স্পেশাল ট্রেনের ব্যবস্থা করে। বিদেশী মুসল্লীদের সুবিধার কথা মাথায় রেখে বিমান সংস্থা এয়ার ইন্ডিয়া অতিরিক্ত বিমানের ব্যবস্থা রাখে। বুলন্দশহর জৌনপুর সহ অন্যান্য অঞ্চলের স্থানীয় হিন্দুরাও ব্যপক হযোগিতা। শেষ দিন গোটা বুলন্দশহরে দীর্ঘ আটারো ঘন্টাব্যাপী ট্রাফিক জ্যামে আবদ্ধ হয়ে আটকা পড়ে লক্ষ লক্ষ যানবাহন।আটকা পড়েন দুর দুরান্তের মুসল্লিরা। সম্প্রিতীর অনন্য নজির দেখা যায় বুলন্দ শহরে। ট্রাফিক জ্যামে আটক মুসল্লিদের নামাজ ও রেষ্টের জন্য খুলে দেওয়া হয় বুলন্দ শহরের বেশ কয়েকটি হিন্দু মন্দির, স্কুল ,কলেজ, সহ অন্যান্য প্রতিষ্টান। গত জুম্মাবারে তাবলিগের বিশ্ব আমীর মাওলানা সাদ সাহেবের ইমামতীতে জুম্মার নামাজের মধ্যে দিয়ে শুরু হয় এবারের বিশ্ব ইজতেমার মুল কার্যক্রম।চলে সোমবার পর্যন্ত। স্থানীয়দের হিসাব অনুযায়ী জুম্মার নামাজের জমায়েতে প্রতিটি নামাজের সফের দৈর্ঘ্য প্রায় বিশ পচিশ কিলোমিটার পর্যন্ত গড়ায়। ব্যপক জমায়েত দেখে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে বিশৃংখলার আশংকা করা হলেও শেষ পর্যন্ত তাবলিগী সেচ্ছা সেবকদের কঠোর তৎপরতায় কোন বড় ধরনের বিশৃংখলা ছাড়া নির্বিঘ্নে সমাপ্ত হলো বিশ্ব ইজতেমা। শান্তিপ্রিয় তাবলিগ জামাতের সমগ্র বিশ্বের আগামী এক বৎসরের বিভিন্ন কর্ম নিয়ে পর্যালোচনা এবং ফায়সালা করা হয়েছে। উল্লেখ্য তাবলিগ জামাতের মুল কাজ হলো, প্রত্যেক মুসলমানের আত্ম সংশুধনীর কাজ করা। প্রত্যেক মুসলমানের ইমান ও আমালকে সহি করার মেহনত করা। সমাজে ভ্রাতৃত্ব ও মানবতার পয়গাম পৌছানো।

Facebook Comment





© All rights reserved © 2019 Tablignewsbd.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com
error: Content is protected !!