মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ০৫:৫৪ পূর্বাহ্ন

মাওলানা জিয়াকে নিয়ে কেন মিথ্যাচার?এই নিলজ্জতার শেষ কোথায়?

মাওলানা জিয়াকে নিয়ে কেন মিথ্যাচার?এই নিলজ্জতার শেষ কোথায়?

সাভার প্রতিনিধি, তাবলীগ নিউজ বিডিডটকম | সাভারে অবস্থিত সুনামখ্যাত দ্বীনী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান “মারকাযুল উলুম আশ্- শরিয়্যাহ সভার” এর প্রেন্সিপাল, তাহজীব ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান, বাংলাদেশের খ্যাতিনামা চিন্তক আলেমেদ্বীন মাওলানা  জিয়া বিন কাসেমকে নিয়ে মিথ্যাচার ও নিলজ্জ ভুয়া সংবাদ প্রকাশ করায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন দেশের চিন্তাশীল উলামায়ে কেরাম।

আজ সংবাদ পত্রে প্রদত্ত এক বিবৃতিতে তারা বলেন, মাওলানা জিয়া বিন কাসেম বিগত ২৮নভেম্বর ইন্দোনেশিয়ার ইজতেমায় অংশ নিতে সেখানে যান। টঙ্গীর ১লা ডিসেম্বর ঘটনার সময় তিনি ইন্দোনেশিয়াতেই অবস্থান করছিলেন। কিন্তু তাকে এর সাথে জড়িয়ে মিছিল, মিটিং ও সংবাদ পরিবেশন তাবলীগ বিরোধী চক্রের গভীর ষড়যন্ত্র । ১লা ডিসেম্বরের  মাসধিক পূর্বে তার বিদেশে ইজতেমার সফরের ফায়সালা ও ভিসা করা হয়। নিজামুদ্দিন  বিশ্ব মারকাজের মুরুব্বীদের সাথে তিনি সেদেশে অবস্থান করছেন।

মাওলানা জিয়া বিন কাসেমের মতো বিদগ্ধ  আলেমেদ্বীন ও দারুল উলুম দেওবন্দের এই সূর্যসন্তানকে নিয়ে তাদের জঘন্য মিথ্যাচার মূলত তাদের ষড়যন্ত্র  ও নীল নকশার চিত্রই ফুটে উঠেছে। তারা এর দ্বারা টঙ্গীর ময়দানে ছাত্রদিয়ে হামলা করে তাবলীগের মুরুব্বীদের ফাসানোর সুগভীড় চক্রান্ত বলে মনে করছেন।

মাওলানা জিয়া বিন কাসেম এদেশের লক্ষ লক্ষ চিন্তাশীল তারুণ্যের আইডল। একজন মুহাক্কিক আলেমের পাশাপাশি সুপরিচিত একজন মুবাল্লীগও বটে।  সারা দুনিয়াতে যার দাওয়াতের কাজ নিয়ে ব্যাপক পরিচিতি ও গ্রহনযোগ্যতা রয়েছে। ইতোমধ্যে ৫৭টি দেশ যিনি তাবলীগের কাজে সফর করেছেন।

টঙ্গীর  ময়দানে ছাত্রদের দিয়ে তাবলীগের সাথীদের উপর হামলা একজন মূলধারার তাবলীগের সাথীকে খুন করার পরেও উল্টো শাপলা, বার্মা, সোমালিয়ার  ছবি দিয়ে মিথ্যা পোষ্টারিং, ছাত্র মৃত্যুর গজব ছড়ানো হচ্ছে।  এমনকি বিদেশে অবস্থানরত মাওলানা জিয়া বিন কাসেমকে খুনি বলে তার নামে মিছিল করে ফাঁসি  চাওয়ার মতো নিলজ্জ ও জঘন্য মিথ্যাচার করছেন কিছু নীতিভ্রষ্ট আলেম। এরদ্বারা মূলত তাদের আসল চরিত্র ও গভীর চক্রান্তের চিত্রই ফুটে উঠছে বলে মনে করেন অনেকেই।

 

এব্যাপারে মাওলানা জিয়া বিন কাসেম এর সাথে এই প্রতিনিধির মুঠোফোনে কথা হলে তিনি জানান, আমি এই ঘটনাশুনে বিস্মিত।  আমি ভাবতেও পারছিনা একের পর এক মিথ্যাচার কিভাবে কতিপয় আলেম করছেন। তাদের ভিতরে কি আল্লাহর কোন ভয় নেই। আলেমের বড় পরিচায় তো আল্লাহর ভয়। তখন তো মিথ্যা বলা সম্ভব নয়। তাদের মিথ্যাচার আর চক্রান্তের ফলে তাবলীগ বিরোধী আন্দোলনে তাদের উদ্দেশ্যে ক্রমশ স্পষ্ট হয়ে উঠছে। মিথ্যা দিয়ে সত্যকে বেশিক্ষন চাপা দিয়ে রাখা যায় না। তিনি সাভারের কতিপয় আলেমদের এহেন মিথ্যাচারে তিনি বিস্ময় প্রকাশ করেছেন।

  • উল্লেখ্য গত ৬ডিসেম্বর আওর ইসলাম অনলাইন পত্রিকায় এরকম একটি বানোয়াট, উদ্ভট, হলুদ সাংবাদিকতার নিলজ্জ মিথ্যা সংবাদ মাওলানা জিয়া বিন কাসেমকে নিয়ে প্রকাশ করে। তাতে লেখা হয়,  “সাভারের ওলামায়ে কেরাম  সাদপন্থী আলেম মাওলানা জিয়া বিন কাসেম, মুহাম্মাদ শাফিক, ইঞ্জিনিয়ার শফিক, প্রফেসর আরিফ, ডা. আব্দুল কুদ্দুস, ইঞ্জিনিয়ার সায়েম, মোহাম্মদ খালেদ, শামসুল আলমের শাস্তিও চেয়েছেন। ওলামায়ে কেরামের অভিযোগ হলো, টঙ্গী ইজতেমা ময়দানে হামলার নেতৃত্ব দিয়েছেন এরা। কলমা মারকাজে শবগুজারির পর তাদের নেতৃত্বে কয়েকটি জামাত সেখানে গিয়ে হামলা চালিয়েছে। তারা জিয়া বিন কাসেমসহ সবার বিরুদ্ধে আরো কিছু অভিযোগ এনে বলেন, ডা. এনাম, আপনি নিজেও তাবলীগের পুরনো সাথী। সবই আপনি জানেন। সমস্ত অপকর্মের মূলহোতাদের শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। ওলামায়ে কেরামের সাথে সহমত পোষণ করে প্রায় দেড় হাজার মুসল্লী একবাক্যে শ্লোগান দেন ‘খুনি জিয়ার শাস্তি চাই’। এমপি ডা. এনামুর রহমান বলেন, আপনারা শুধু জিয়ার শাস্তি চাচ্ছেন কেন? সারা বাংলাদেশে এধরনের কাজের সাথে যারাই জড়িত সবাইকে শাস্তি দিবে সরকার। ওলামায়ে কেরামের সাথে এমপির মতবিনিময় সভায় তখন উপস্থিত ছিলেন, মাওলানা আব্দুল্লাহ, মাওলানা আলী আজম, মাওলানা আব্দুল মান্নান পাটোয়ারী, ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাসউদুর রহমান, সাভার ইউনিওনের চেয়ারম্যান সোহেল রানা, মাওলানা খন্দকার কাউসার হুসাইন, মুফতি নাজমুল হাসান বিন নূরী, মাওলানা সুলতান মাহমুদ, মাওলানা আলি আকরাম, মাওলানা আলী আকবর কাসেমী, মাওলানা জুনাইদসহ সাভারের শীর্ষস্থানীয় ওলামায়ে কেরাম।”

Facebook Comment





© All rights reserved © 2020 TabligNewsBD.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com