মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ০৬:২২ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
জুবায়েরপন্থীদের সন্ত্রাসী কার্যক্রম নিষিদ্ধের দাবী জানালেন হক্কানী উলামায়ে কেরাম মাদ্রাসাদস্যুদের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলনের লিখিত বক্তব্য দেওবন্দের নতুন মুহতামিম মাওলানা মুহাম্মাদ ক্বারী উসমান মানসুরপুরী ১৫ অক্টোবর থেকে খুলছে দারুল উলুম দেওবন্দসহ উত্তরপ্রদেশের মাদরাসাগুলো পাকিস্তানে সন্ত্রাসী হামলায় মাওলানা ড. আদিল খান  শহীদ হয়েছেন তাবলীগ ইস্যুতে দেওবন্দের খেলাফ যে কাজ হয়েছে বাংলাদেশে তাবলীগ নিয়ে অপপ্রচারে তীব্র ভর্ৎসনা ভারতীয় শীর্ষ আদালতের তাবলিগ মামলায় মোদী সরকারের সমালোচনায় সুপ্রিম কোর্ট মসজিদ আল হারামের শিক্ষক শায়খ মুহাম্মাদ বিন আলী আর নেই চলে গেলেন হৃদয়রাজ্যের আরেক বাদশা
সাংবাদিক সম্মেলনে তাবলীগের ৯দফা দাবী পেশ

সাংবাদিক সম্মেলনে তাবলীগের ৯দফা দাবী পেশ

আহমদ হাসান, প্রধান প্রতিবেদক, তাবলীগ নিউজ বিডিডটকম।তাবলিগ জামাত নিয়ে রাজনীতি ও গভীর ষড়যন্ত্র  হচ্ছে বলে অভিযোগ তুলেছেন তাবলীগের মুরুব্বীরা । একই সঙ্গে সংকট সমাধানে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করে তারা ৯দফা দাবি জানিয়েছেন।

প্রশাসনের বৈরি আচরণ ও পক্ষপাতিত্বমূলক অবস্থান, ওয়াদা ভঙ্গ এবং পূর্বেরমতো পূণরায় আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির মারাত্মক অবনতির আশঙ্কার প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে ৯দফা দাবী পেশ করেছেন তাবলীগ জামাত বাংলাদেশ। আজ ১০ ডিসেম্বর, সোমবার,

বেলা ২টায়,  ঢাকা রিপোটার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) সাগর-রুণি মিলনায়তন, সেগুনবাগিচায় এই সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত  হয়। সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পেশ করেন তাবলীগ জামাতের  কাকরাইল মসজিদের মুরুব্বী বীর মুক্তিযোদ্ধা মাওলানা আশরাফ আলী।

বক্তব্য মাওলানা আশরাফ আলী বলেন,  বিগত ১ ডিসেম্বর, ২০১৮ তারিখে টঙ্গী বিশ্ব ইজতিমা ময়দানে সংঘটিত অপ্রীতিকর ঘটনার প্রেক্ষিতে গতকাল ৮ ডিসেম্বর, ২০১৮ তারিখে দেয়া প্রশাসনের বক্তব্য দুঃখ জনক। তাঁদের বৈরি,  আচরণ ও পক্ষপাতিত্বমূলক অবস্থান, ওয়াদা ভঙ্গ ইত্যাদি কারণে আবারও পূর্বেরমতো আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির মারাত্মক অবনতি ঘটতে পারে বলে আমরা আশঙ্কা করছি।  এছাড়া ইজতেমা মাঠের ঘটনার পেক্ষাপটে হেফাজতের উস্কানীমূলক  বক্তব্য ও মিথ্যাচারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান তাবলীগের মুরুব্বীরা। মুরুব্বীরা বলেন সারা দুনিয়াতে তাবলীগে কোন বিভক্তি আসে নি। কিছু মুরুব্বী মূলধারা থেকে বের হয়ে গেছেন কেবল। আর বাংলাদেশপ তারা হেফাজতকে ব্যবহার করে তাবলীগকে রাজনৈতিক স্বার্থে তাদের নিয়ন্ত্রণে নেয়ার চেষ্টা থেকেই এই সংঘাত তৈরি করছেন।

তাবলীগের মুরুব্বীরা বলেন, সেদিনের ঘটনার পর থেকে সারা দেশে হেফাজতের সহিংসতা, তাবলীগের সাথীদের বাড়িঘরে আক্রমন, গুজব চালিয়ে মিছিল মিটিং এর ঘটনা উল্লেখ  করে  বলেন, ছাত্রদের দিয়ে অবৈধভাবে  মাঠ দখলে রেখে  ৫দিনের জোড়ে বাধাপ্রদান ও ছাত্রদের দিয়ে তাবলীগ সাথীদের মারধর,উপর থেকে ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে আমাদের এক তাবলীগের সাথীকে শহীদ করে উল্টো গায়ের জোড়ে আমাদের ফাঁসি চেয়ে নিলজ্জ পোষ্টারিং করা হচ্ছে সারাদেশে।

মিথ্যা মামলার পাশাপাশি   আরো বিস্ময়কর অবাক করা বিষয় সেসব পোষ্টারে ১০১৩সালের ৫মে শাপলা চত্তরের সংঘর্ষে তৎকালিন মিডিয়াতে আসা আলোচিত ছবি, আরকানের রোহিঙ্গা  নির্যাতনের ছবি, সোমালিয়ার মুসলিম শিশু নির্যাতনের ছবি ছাপিয়ে জনগনকে বিভ্রাম্ত জ উত্তেজিত করে ধর্মীয় সংঘাত সৃষ্টির চেষ্টা করছে তারা। আমরা অবাক হই কেবল প্রতিপক্ষকে ফাসানোর জন্য এমন মিথ্যাচার কিভাবে করতে পারেন আলেমরা। তাদের কাছে ইসলামের কি শিক্ষা আছে? সারা দেশে গুজব ছড়ানো ও কোটি কোটি টাকা খরচ করে মিথ্যা পোষ্টারিং করে দেশে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টি কাদের ইন্দনে করা হচ্ছে সে চক্রকে খোজে বের করতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন তারা।

সংবাদ সম্মেলনে তাবলীগের মুরুব্বীরা ছয় দফা দাবী পেশ করেন, তা হল…

(১) গত ১ ডিসেম্বর, ২০১৮ তারিখে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহোদয়ের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী টঙ্গী মাঠের পুরো নিয়ন্ত্রণ সরকারের হাতে নিতে হবে।

(২) বিভিন্ন জেলার বিভিন্ন মসজিদে বা এলাকায় তাবলীগের কোনো কাজে কেউ বাধা দিতে পারবে না। বাধা দিলে প্রশাসন ব্যবস্থা নিতে হবে।

(৩) মাদ্রাসার ছাত্রদেরকে তাবলীগের কাজে বাধা দেয়া বা রাজনীতিতে সম্পৃক্ত করা যাবে না।

(৪)  দারুল উলুম দেওবন্দ মাদ্রাসার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, দারুল উলুম দেওবন্দ তাবলীগের আভ্যন্তরীণ বিষয়ে কোনোপক্ষে কথা বলবে না। আমরা চাই: আমাদের উলামায়েকেরামগণও কথায় ও কাজে দারুল উলুম দেওবন্দের সাথে ঐক্যমত পোষণ করেন।

(৫) বিদেশী মেহমানদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

(৬) আমরা আগেরমতোই বাংলাদেশে রাজনীতিমুক্ত তাবলীগ চাই।

(৭) মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। সারা দেশে তাবলীগ সাথীদের উপর হামলার দ্রুত ব্যাবস্থা নিতে হবে।

(৮) টঙ্গীর ঘটনার জন্য দ্রুত বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিঠি ঘটন করতে হবে।

(১০) দেশ -বিদেশী মুসল্লীদের  উপস্থিতিতে বিশ্ব ইজতেমা করার জন্য সংঘাত বন্ধ করে দেশ ও ধর্মের স্বার্থে সুষ্ঠু  পরিবেশ তৈরি করতক হবে।

এসময় অনন্যদের মাঝে উপস্থিত  ছিলেন, মাওলানা আব্দুল্লাহ  মনসুর, মাওলানা সাইফুল্লাহ, ইকরাম হুসেন প্রমূখ।

 

Facebook Comment





© All rights reserved © 2020 TabligNewsBD.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com