বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ০১:৫১ অপরাহ্ন

কোটি কোটি টাকার ‘ভুয়া ফাঁসির’ পোষ্টারিং! এ টাকার উৎস কোথায়? (অনুসন্ধানী প্রতিবেদন)

কোটি কোটি টাকার ‘ভুয়া ফাঁসির’ পোষ্টারিং! এ টাকার উৎস কোথায়? (অনুসন্ধানী প্রতিবেদন)

ষ্টাফ রিপোর্টার | তাবলীগ নিউজ বিডিডটকম | ঢাকাসহ সারাদেশে শতাধিক মুবাল্লিগের “ভুয়া ফাঁসি” চেয়ে পোষ্টার সাঁটানো হয়েছে। জেলায় জেলায় করা হয়েছে আলাদা চার কালারের রঙ্গীন পোষ্টার।  বাংলাদেশের ইতিহাসে অনেক বড়বড় সংঘাত ও সংঘর্ষ হয়েছে। কিন্তু এমন অজস্র পোষ্টারিং ও এত লোকের ফাঁসি চাওয়ার ঘটনা বিরল।

 

টঙ্গীর ময়দানে মাদরাসার তালেবান  ও জঙ্গী গোষ্ঠির সহায়তায় মুসল্লীদের উপর বর্বর নারকীয় হামলা করে তাবলীগের সাথী খুন করার পর উল্টো খুনীদের বাঁচাতে নির্দোষ প্রতিপক্ষের নামে ‘ভুয়া ফাঁসির” পোষ্টারিং করা হচ্ছে।

 

অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে ভয়ংকর কিছু ষড়যন্ত্রের তথ্য। প্রথমত মাদরাসার ছাত্র-ত্বোলাবাদের ব্যবহারের বিষয়টি প্রথম থেকেই সমালোচিত হয়ে আসছিল। কোমলমতি ছাত্রদেরকে মাঠ দখলের জন্য ব্যবহার নিয়ে মূলধারার তাবলীগ সাথীরা ৫দিনের জোড়ের আগে সাংবাদিক সম্মেলন ও লিফলেট বিতরনের ফলে অভিভাবকরা সোচ্ছার হয়ে উঠেন।

 

অভিভাবকরা বারবার মাদরাসার ছাত্রদের দিয়ে ধর্মীয় সংঘাতের কাজ করনো নিয়ে সোচ্ছার হন। এনিয়ে,  কওমী মাদরাসা অভিভাবক পরিষদের ব্যানারে  সারাদেশে এর প্রতিবাদে  গনস্বাক্ষর কর্মসূচি গ্রহন করা হয়। মাদরাসার কোমলমতি ছাত্রদের হাতে লাটিসোঁটা দিয়ে সংঘর্ষে জড়ানো ও ১লা ডিসেম্বরের ঘটনায় সারাদেশে অভিভাবকরা মাদরাসার মুহতামিমের বিরুদ্ধে এনিয়ে মামলা করার উদ্যোগ নেন।

 

একাধিক মাদরাসার মুহতামিমের সাথে আলাপ করে যানা যায়,  মূলত অভিভাবকদের রোষানল থেকে বাঁচতেই ঘটনার মোড় ঘুরিয়ে তা তাবলীগের সাথীদের উপর ফালানো ও তাদের উপর যেন উল্টো মাদরাসার অভিভাবকরা ক্ষিপ্ত হন সেজন্যই সারাদেশে এই সভা, মিছিল মিটিং, ব্যানার, লিফলেট, ফেস্টুন ও পোষ্টারিং সাঁটানো হয়েছে।

 

আর ধর্মীয় সেন্টিমেন্ট উল্টো উস্কে দিতে হেফাজতের ২০১৩ সালের রক্তাক্ত ছবি, সোমালিয়ার ২০১৬সালের ও রোহিঙ্গা মুসলমান নির্যাতনের ২০১৭সালে মিডিয়াতে আলোচিত অসংখ্য ভয়ংকর ছবি টঙ্গীর সংঘর্ষের ছাত্র নির্যাতন বলে চালিয়ে দেয়া হচ্ছে। এছাড়া পোষ্টারে মূলধারার তাবলীগের সাথীদের আহত হবার ছবিতো আছেই।

কেন এই জালিয়াতি? বিশ্লেষক মহল মনে করছেন, তাবলীগ নিয়ে আন্তর্জাতিক চক্রের পাতানো নীল নকশায় ঢাকার পাকিস্তানপন্থী যেসব রাঘব বোয়ালরা এসব কাজ করছেন, তাদের সেভ করতে ও বাঁচাতেই এই ভয়ংকর জালিয়াতির আশ্রয় নেয়া হয়েছে।

 

মাওলানা শাহরিয়ার মাহমুদ,  কেফায়াতুল্লাহ আজহারী, মামুনুল হক ও মাহফুজুল হকের সরাসরি অর্থায়নে কোটি কোটি টাকার এসব পোষ্টারিং সাঁটানো হয় সারা দেশে। তাছাড়া নির্বাচনের আগে ধর্মীয় আবেগ উস্কে দিয়ে দেশে আরেকটি বড় ধরনের সংঘাতের কোন পরিকল্পনা ছিল কি না এসব মিথ্যা ভুয়া ফাঁসির পোষ্টারিং এ বিষয়টি খাতিয়ে দেখছে সরকারের নানান গোয়েন্দা  সংস্থা।

তাদের এই টাকার উৎস কোথায় তা নিয়ে তৈরি হয়েছে আইনশৃংখলা বাহিনীর মাঝে নানান প্রশ্ন। আশা করা যাচ্ছে নির্বাচনের পর সেই থলের বিরাল বেরিয়ে আসবে ঠিকই।

Facebook Comment





© All rights reserved © 2020 TabligNewsBD.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com