মঙ্গলবার, ১৬ Jul ২০১৯, ০২:২৭ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
ওজাহাতী নেতা উবায়দুল্লাহ ফারুককে ভোট না দিতে আলেমদের আহ্বান

ওজাহাতী নেতা উবায়দুল্লাহ ফারুককে ভোট না দিতে আলেমদের আহ্বান

ষ্টাফ রিপোর্টার (সিলেট অফিস)| তাবলীগ নিউজ বিডিডটকম| ২৫ ডিসেম্বর ১৮ ইং তারিখ রোজ মঙ্গলবার দুপুরে কানাইঘাট মাদরাসায় পূর্ব সিলেটের সকল উলামায়ে কেরামের সম্মিলিত এক নীতিনির্ধারণী বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত বৈঠকে শায়খুল হাদিস আল্লামা আলিমুদ্দীন শায়খে দুর্লভপুরী বলেন, জামায়াতে ইসলামী ও জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের মধ্যকার ঐকমত্য কোনভাবেই আহলে হক হক্কানী উলামায়ে কেরাম মেনে নিতে পারেন না। জামায়াতে ইসলামী ও জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের নির্বাচনী ঐক্যের খবরে আমরা হতাশ। আদর্শ বিবর্জিত রাজনীতি আমরা চাই না। জামায়াত-শিবির ও তার দোসররা ইসলাম ও মুসলমানদের চরম শত্রু। তাই এদেরকে প্রতিহত করা মুসলমানদের ঈমানী দ্বায়িত্ব।

সভায় জামায়াতে ইসলামী ও জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের নির্বাচনী ঐক্যের খবরে হতাশা ব্যক্ত করে পূর্ব সিলেটের উলামায়ে কেরাম বলেন, আমরা কোন দিন আদর্শ ও নীতি বিবর্জিত কোন সিদ্ধান্ত নিতে পারি না।

জামায়াত-শিবির ও তার দোসররা ইসলাম ও মুসলমানদের চরম শত্রু। তাই তাদের সাথে মাওলানা উবায়দুল্লাহ ফারুকের মতো নীতি-আর্দশ বিক্রিকারীকে প্রতিহত করতে বিকল্প হিসাবে তুলনামূলক ভালো প্রার্থীকে ভোট দিতে নেতা কর্মীদের প্রতি তারা আহ্বান জানান।

সভায় বক্তারা বলেন, আমরা আদর্শ জলাঞ্জলী দিয়ে কাউকে সমর্থন দিতে পারি না। সবার আগে ঈমান-ইসলামের আদর্শ। তারপর রাজনীতি।

জামাত নেতাদের সাথে উবায়দুল্লাহ ফারুকের কোলাকুলি

তারা বলেন, জামায়াত ও জমিয়তের ঐক্যে হতাশ উলামায়ে কেরাম। আমরা কখনো কুরআন-সুন্নাহবিরোধী কোন কাজে অংশগ্রহণ করতে পারি না। দুশমনের বন্ধুও দুশমন। তাই আজ উবায়দুল্লাহ ফারুক কোনভাবেই দ্বীনদারদের বন্ধু হতে পারেন না।

কে এই উবায়দুল্লাহ ফারুক? কী তার আসল রূপ? জানতে তাবলীগ নিউজ বিডির অনুসন্ধানী রিপোর্টটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন।

আজকের এই বৈঠকটি শায়খুল হাদিস আল্লামা মুহাম্মদ বিন ইদ্রিস শায়খে লক্ষিপুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এতে আরো উপস্থিত ছলেন শায়খুল হাদিস আল্লামা আলিমুদ্দীন শায়খে দুর্লভপুরী, আল্লামা ইউসুফ শায়খে শ্যামপুরী, আল্লামা মাহমুদুল হাসান শায়খে রায়গড়ী, আল্লামা শামসুদ্দীন দুর্লভপুরী, আল্লামা নজরুল ইসলাম তোয়াকুলী, মাওলানা রুহুল আমীন আসাদী, মাওলানা আজমত উল্লাহ, মাওলানা আব্দুর রহমান, আল্লামা হাফিয হারুনুর রশীদ উজানীপাড়ী, মাওলানা আব্দুল হক গোবিন্দপুরী, মাওলানা আবুল হোসাইন চতুলী, মাওলানা ক্বারী হারুনুর রশীদ চতুলী, মাওলানা খালিদ সাইফুল্লাহ , মাওলানা মামুনুর রশীদ, মাওলানা তাহির আলী, মাওলানা কামাল উদ্দীন, মাওলানা শফিকুল ইসলাম, মাওলানা বদরুল ইসলাম আল ফারুক, মাওলানা হাফিয নজীর আহমদ, মাওলানা আসাদ আহমদ কানাইঘাটী, মাওলানা হাফিয জাকারিয়া, মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস, মাওলানা হাফিয সিদ্দিকুর রহমান, মাওলানা মঈন উদ্দীন প্রমুখ।

উল্লেখ্য যে, দাওয়াত ও তাবলীগের চলমান সংকটের নেপথ্য নায়ক ও অন্যতম প্রধান কুশলিব হলেন এই ধুরন্ধর উবায়দুল্লাহ ফারুক। গত বছর “সাদ সাহেবের আসল রূপ” নামে একটি মিথ্যা চটি বই লেখে তিনি সরলমনা আলেমসমাজকে বিভ্রান্তিতে ফেলে দেন। পরবর্তীতে ঘোলাপানিতে হাবুডুবু খাওয়া এই আলেমদের অনেকেই নিজেদের ভুল বুঝতে পারলেও ‘ইগো’ সমস্যার কারণে ফিরে আসতে পারছেন না। ভুল স্বীকার করে এই ধুরন্ধর উবায়দুল্লাহ ফারুককে জবাবদিহির আওতায় নিয়ে আসলে পরিস্থিতি আজ এই পর্যন্ত গড়াতো না বলে অনেকেই মনে করছেন। কিন্তু ভুল স্বীকার করে সঠিক পথে ফিরে আসাকে তারা তাবলীগীদের কাছে ‘নতিস্বীকার বা পরাজয়’ ভেবে ভুলের উপরই জেঁকে বসেন। যদ্দরুন ‘অহংকার পতনের মূল’ প্রবাদটিতে ফেঁসে যান। এরকম গুটিকতক হেফাযতনেতা শাক দিয়ে মাছ ঢাকার মত নিজেদের বিভ্রান্তি ও বালখিল্যতা আড়াল করতে গিয়ে ‘ওজাহাতি’ গ্রুপে বিবর্তিত হন। এভাবে আরো কিছুদিন চলতে থাকলে অহংকার প্রদর্শনের দায়ে ইবলিশের যে পরিণতি হয়েছিলো সেই একই পরিণতি ‘ওজাহাতি’ ফেরকারও বরণ করতে হবে। উবায়দুল্লাহ ফারুকের বর্তমান অবস্থাই তার উজ্জল প্রমাণ।

এই প্রসঙ্গে তরুণ আলেমে দ্বীন, দারুল উলূম উত্তরার প্রতিষ্ঠাতা মাওলানা মু’আয বিন নূর বলেন, সেদিন খুব বেশি দূরে নয় যেদিন এইসব জুমহুর হযরতগণ স্বার্থের টানে বিশ্ব আমীর শায়খুল হাদীস আল্লামা সা’দ হাফিযাহুল্লাহর পায়ে ধরে কান্নাকাটি করবে। মাত্র একবারের জন্য আরেকটি বার সুযোগ চাইবে। প্রয়োজনে সংবর্ধনাও দিতেও প্রস্তুত থাকবে। আরো কত কি!!! হেফাযতের খুনী আজ কওমিজননী। এক কালের ‘কাফের-মুশরিক’ এখন রাজনৈতিক গুরু। মূলতঃ এদের আদর্শের কোন মা-বাবা নেই। যখন-তখন আদর্শ বদলাতে এরা বেজায় পটু। তাই আমরা নির্ভিক, নিশ্চিন্ত। আজকে যাদের ফাঁসি চেয়ে তারা পোস্টার সাঁটাচ্ছে, কালকে তাদেরই ‘পা’ খামচিয়ে শেষ রক্ষার সুযোগ চাইবে, ইনশাআল্লাহ।

Facebook Comment





© All rights reserved © 2019 Tablignewsbd.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com
error: Content is protected !!