সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫:৫৩ অপরাহ্ন

সম্পাদকীয়ঃ শেখ নূর মুহাম্মদ রহ. ছিলেন উম্মাহর হেদায়তের বাতিঘর

সম্পাদকীয়ঃ শেখ নূর মুহাম্মদ রহ. ছিলেন উম্মাহর হেদায়তের বাতিঘর

সৈয়দ আনোয়ার আবদুল্লাহ|এডিটর, তাবলীগ নিউজ বিডিডটকম| সোমবার রাতে এ্যাপলো হাসপাতালে গিয়েছিলাম আল্লাহর পথের মহান দাঈ, কাকরাইলের আহলে শূরা হযরত শেখ নূর মুহাম্মদ সাহেবকে দেখতে। সারারাত হাসপাতালেই ছিলাম। সকাল ১০টা পর্যন্ত হযরতের ছাহেবজাদা বন্ধুবর হাফেয মাওলানা মু’আয বিন নূর সহ একসাথেই ছিলাম। কে জানতো, এর একটু পরেই তিনি চলে যাবেন মাহবুবে হাকীকীর ডাকে সারা দিয়ে না ফেরার দেশে! তাঁর সাথে আর দেখা হবে না।

তাবলীগের কাজে লাগার শুরু থেকেই হযরত শেখ নূর মুহাম্মদ ছাহেব রহ.কে কাছে থেকে দেখেছি। কাকরাইলের মিম্বরে হযরতের কত বয়ান শুনেছি। এতো হৃদয়গ্রাহী ভঙ্গিতে দরদের সাথে কথা বলার মানুষ আজকের জগতে বিরল। তাবলীগ আকাশের এক উজ্জ্বল নক্ষত্র, উম্মাহর এক দরদী রাহবার ছিলেন। দাওয়াতের কাজে তিনি ছিলেন আলের মিনার। আমাদের বাতিঘর।

গভীর অন্ধকার রাতে পথহারা নাবিক যেমন তারকা দেখে দেখে পথের সন্ধান করে নেয়, বাতিঘর দেখে যেমন ক্যাপ্টেন তার জাহাজ সঠিক বন্দরে নোঙর ফেলে, আলোর মিনার দেখে যেমন পথহারা পথিক পথের ঠিকানা খোঁজে পায়, শেখ নূর মুহাম্মদ রহ ছিলেন তেমনি একজন। যাকে দেখে আমরা সব সময় আমাদের মঞ্জিল খোঁজে পেতাম। শেকড়কে আগলে থাকার হিম্মত পেতাম। মূলধারায় জমে থাকার শক্তি ও সাহস পেতাম।

নিজামুদ্দিনের বড়দের কথাকে এদেশে নকল করার ক্ষেত্রে এবং নিজামুদ্দিনের তাকাজাকে এদেশে চালানোর ব্যপারে হযরত শেখ নূর মুহাম্মদ রহ এর বিকল্প কেউ ছিলেন না। নিসংকোচ আর নির্দ্বিধায় তিনি দাওয়াত ও তাবলীগের কাজে মূলধারাকে আগলে রাখতেন।

স্পষ্টভাবে মনে আছে, ২০০৮ সালে হযরতজী মাওলানা সাদ কান্ধলভী ৬ ছিফাতের ‘তাফসীল’ পেশ করলেন। কাকরাইলের আহলে শূরাগন এটি নিতে পারছিলেন না। কিন্তু শেখ সাহেব রহ. ততোদিনে সারাদেশে সেটা চালু করে দিলেন। সর্বত্র ব্যাপকভাবে এটা মুযাকারা করতে থাকলেন। সাথীরাও খুব নিতে থাকল।

তাঁর জীবনের একমাত্র উদ্দেশ্যে ছিল, আল্লাহর বান্দার কাছে আল্লাহর পয়গাম পৌছানো। দাওয়াত ও তাবলীগের কাজ ছিল তাঁর জীবনের একমাত্র ব্রত। তাবলীগই ছিল জীবনের ধ্যান ও জ্ঞান। তিনি নিজের জীবন যৌবন, অর্থ, সম্পর্দ, যোগ্যতা সব উজাড় করে দিয়ে এই নবীওয়ালা কাজকে বুকে আগলে নিয়েছিলেন পরম যতনে।

জেনারেল উচ্চশিক্ষিত মানুষ ছিলেন। অনেক বড় মাপের ইঞ্জিনিয়ার হয়েও সব ছেলেদেরকে আলেম ও মুফতী বানিয়েছেন। ছেলেদের সাল লাগিয়েছেন। আলেম উলামাদের সীমাহীন মহব্বত করতেন। দ্বীন আর দ্বীনের মেহনতকে এই মুখলেছ দায়ী কখনো নিজের স্বার্থ হাসিলের পাথেয় বানান নি। দাওয়াতের কাজ করতে করতে নিঃস্ব হয়েছেন।

হযরত শেখ নূর মুহাম্মদ রহ আমাদের জন্য এক মহান আর্দশ হয়ে চিরকাল লক্ষ কোটি দায়ীর অন্তরে অমর হয়ে থাকবেন। তার মাকবারায় লাখো মানুষের আমল পৌছবে কেয়ামত পর্যন্ত। তার জন্য মাওলাপাকের দরবারে মোনাজত করছি…

انالله وانا اليه راجعون. اللهم اجرنا في مصيبتنا واخلفنا خيرًا منما, الَّهُمَّ اغْفِرْ لَهُ ، وارْحمْهُ ، وعافِهِ ، واعْفُ عنْهُ ، وَأَكرِمْ نزُلَهُ ، وَوسِّعْ مُدْخَلَهُ واغْسِلْهُ بِالماءِ والثَّلْجِ والْبرَدِ ، ونَقِّه منَ الخَـطَايَا، كما ينَقَّى الثَّوب الأبْيَضَ منَ الدَّنَس ، وَأَبْدِلْهُ دارا خيراً مِنْ دَارِه ، وَأَهْلاً خَيّراً منْ أهْلِهِ، وزَوْجاً خَيْراً منْ زَوْجِهِ ، وأدْخِلْه الجنَّةَ ، وَأَعِذْه منْ عَذَابِ القَبْرِ ، وَمِنْ عَذَابِ النَّار

Facebook Comment





© All rights reserved © 2020 TabligNewsBD.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com