বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮:০৪ অপরাহ্ন

ভারতের করিমগঞ্জ জেলা ইজতেমা শেষ হল

ভারতের করিমগঞ্জ জেলা ইজতেমা শেষ হল

ফখরুল ইসলাম, করিমগঞ্জ প্রতিনিধি, ভারত, তাবলীগ নিউজ বিডিডটকম| লক্ষাধিক মুসল্লিদের উপস্থিতিতে আসাম রাজ্যের করিমগঞ্জ জেলা ইজতেমা শেষ হল। নিজামুদ্দীন মার্কাজের তত্বাবধানে গত শনিবার থেকে সমগ্র আছিমগঞ্জে ইজতেমা উপলক্ষে প্রত্যক্ষ করা যায় এক উৎসবমুখর পরিবেশ। ইজতেমায় দারুল উলুম দেওবন্দের উস্তাদ মাওলানা উসমান গনী সহ হাজারো আলেম উপস্থিত ছিলেন।

ঈমানদীপ্ত আলোচনায় উদ্দীপ্ত হয়ে উঠে গোটা ইজতেমা ময়দান। ঈমান, আক্বিদা, উম্মতের মুহব্বত, মানবতা ও দাওয়াতে তাবলিগের বিষয়ে ইসলামের সঠিক তথ্য তুলে ধরে আলোচনা করেন দিল্লীর নিজামুদ্দীন মারকাজ থেকে আগত তাবলিগের মুরব্বীগণ।

ইজতেমার দ্বিতীয় দিন মাগরিবের নামাজের পর বয়ান করেন তাবলিগের প্রধান কেন্দ্র দিল্লীর নিজামুদ্দীন থেকে আসা হায়দ্রাবাদের প্রখ্যাত শায়খুল হাদীস মুফতি আব্দুল ওয়াহাব । তিনি তার আলোচনায় জোর দিয়ে বলেন, ইসলাম ধর্ম অন্ধকারকে আলোকিত করার শিক্ষা দেয়। ইসলাম ধর্ম শুধু মুসলিমদের জন্য নয় বরং ইসলাম ধর্ম গোটা মানবজাতীর কল্যাণের জন্য এসেছে। যেসব কর্মের দ্বারা মানুষের কল্যাণ হয় না, এমন কর্ম কখনো ইসলাম হতে পারে না। ইসলাম যেমন এক আল্লাহে বিশ্বাস করার কথা বলে ঠিক তেমনি ইসলাম মানুষের কল্যাণের কথা বলে। হিংসা হানাহানি বর্জন করা ও সৌহার্দ্যতা ,ভালোবাসার পয়গাম নিয়ে এসেছিলেন হজরত মুহাম্মাদ সঃ।

তিনি আরও বলেন, পরকালের মুক্তির জন্য হজরত মুহাম্মাদ সঃ এর আনুগত্য স্বিকার করে রসুলের দেখানো পথে চলতে হবে মুসলিমদেরকে। রসুলের দেখানো পথ থেকে বিচ্যুতি ঘটলেই মুসলিমদের ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া প্রত্যাশিত। নিজামুদ্দীন মারকাজ থেকে আগত আরেক মেহমান গুজরাটের মুফতি নাদির সাব বলেন, সব বিচারকের বিচারক একমাত্র আল্লাহ। সুতরাং আল্লাহর দৃষ্টিতে সৎলোক হওয়া কাম্য। আর ইহজগত ও পরজগতে সফলতা অর্জন করার লক্ষ্যে মানুষের কল্যাণে নিজেকে নিয়োজিত করলেই সফলতা অর্জন সম্ভব।

মঙ্গল বার সকাল দশ ঘটিকায় বিশ্ব শান্তির কামনায় দোয়া করেন দিল্লী নিজামুদ্দীন থেকে আগত হায়দ্রাবাদের শায়খুল হাদিস আব্দুল ওয়াহাব ।

উল্লেখ্য লাক্ষাধিক মুসল্লির আগমনে ইজতেমার শেষ দুদিন গোটা ইজতেমা ময়দানে মোবাইল পরিষেবা ব্যহত হয়ে পড়ে।ইজতেমার দ্বিতীয়দিন আছর নামাজের পর করিমগঞ্জ জেলার সকল উলামায় কেরামদের জন্য ইজতেমা ময়দানে পৃথক জোড় হয়। এতে জিলার হাজারো উলামা অংশগ্রহণ করেন।

এতে দাওয়াতের কাজের গুরুত্ব ও মুসলিম উম্মাহের করণীয় বিষয় নিয়ে উলামাদের সম্মুখে আলোচনা করেন নিজামুদ্দীন মারকাজ থেকে আগত ভুপালের মুফতি রিয়াসত আলী সাব।নিজামুদ্দীনের অতিথিরা উর্দু ভাষায় আলোচনা করলেও মুসল্লিদের বুজার সুবিধার জন্য মুল আলোচনাগুলি বাংলা ভাষায় অনুবাদ করা হয়। অনুবাদ করেন তাবলিগের আসাম শুরার সদস্য মওলানা জামালালদ্দিন, মুফতি সিহাব উদ্দীন ও অন্যান্যরা।

Facebook Comment





© All rights reserved © 2020 TabligNewsBD.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com