শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭:৫৯ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
আল্লামা শাহ আহমদ শফীর ইন্তেকালে জাতীয় কওমী মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড এর শোক হাটহাজারী মাদরাসা বন্ধ ঘোষনা এক আল্লাহ জিন্দাবাদ… হাটহাজারী মাদরাসায় ছাত্রদের বিক্ষোভ ভাঙচুর : কওমীতে নজিরবিহীন ঘটনা ‘তাবলিগের সেই ৪ দিনে যে শান্তি পেয়েছি, জীবনে কখনো তা পাইনি’ তাবলীগের কাজকে বাঁধাগ্রস্থ করতে লাখ লাখ রুপি লেনদেন হয়েছে: মাওলানা সাইয়্যেদ আরশাদ মাদানী দা.বা. (অডিওসহ) নিজামুদ্দীন মারকাজ বিশ্ব আমীরের কাছে বুঝিয়ে দিতে আদালতের নির্দেশ সিরাত থেকে ।। কা’বার চাবি দেওবন্দের বিরোদ্ধে আবারো মাওলানা আব্দুল মালেকের ফতোয়াবাজির ধৃষ্টতা:শতাধিক আলেমের নিন্দা ও প্রতিবাদ একান্ত সাক্ষাৎকারে সাইয়্যেদ আরশাদ মাদানী :উলামায়ে হিন্দ নিজামুদ্দীনের পাশে ছিলেন, আছেন, থাকবেন
দেওবন্দ থেকে গত একমাসে ৩৮টি জামাত বের হয়েছে

দেওবন্দ থেকে গত একমাসে ৩৮টি জামাত বের হয়েছে

শেখ মুহাম্মদ, দেওবন্দ থেকে, তাবলীগ নিউজ বিডিডটকম| দারুল উলুম দেওবন্দ থেকে নিয়মিত ছাত্রদের জামাত পূর্বের মতোই বের হচ্ছে। জামাতে অংশ নিচ্ছেন অনেক মুবাল্লিগ ছাত্ররা। গত একমাসে অধর্শতাধিক ২৪ ঘন্টার জামাত বের হয়েছে।

জানা যায়, গত সাপ্তাহে কেবল ১৩টি জামাত দারুল উলুম দেওবন্দ মাদরাসা থেকে বের হয়ে এর মধ্যে তিনটি নিজামুদ্দীন গেছে। সবকটি জামাতই বের হয়েছে নিজামুদ্দিনের তত্বাবধানে পরিচালিত মোহাম্মদীয়া মারকাজ মসজিদ থেকে। গতকাল শবগুজারী থেকে ৮টি ছাত্র জামাত বের হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে একজন জিম্মাদার ছাত্র তাবলীগ নিউজ বিডিডটকমকে জানান, জামাত বের হওয়ার সংখ্যা আগের চেয়ে বহু বেড়েছে। আল্লাহর রাস্তায় সময় লাগিয়ে নিজের মাঝে আমলি এক জিন্দেগী হাসিল করতে এখানের ছাত্ররা আগ্রহী। শায়খুল ইসলাম, শায়খুল আরব ওয়াল আজম, কুতবে আলম সৈয়দ হোসাইন আহমদ মাদানী রহ ছিলেন দাওয়াত ও তাবলীগের একনিষ্ঠ সমর্থক। তখন থেকে দেওবন্দের ছাত্রদের মাঝে আল্লাহর রাস্তায় বের হওয়ার তরগীব দেয়া হত। এটি আজো অব্যহত।

মাওলানা সাদ কান্ধলভীকে নিয়ে চলমান এখতেলাফ সবারই জানা, তারপরেও নিজামুদ্দিনের তত্বাবধানে পরিচালিত মারকাজ থেকে ছাত্ররা বের হয় এতে কি কোন আপত্তি নেই দারুল উলুমের? এমন প্রশ্নের জবাবে দেওবন্দে তাবলীগের জিম্মাদার নাজিম সাহেব জানান, নিজ দেশের উস্তাদদেরদ্বারা প্রভাবিত কিছু বাঙ্গালী ছাত্র ছাড়া অন্যদের মাঝে এনিয়ে কোন আলোচনা বা প্রভাব নেই। দাওয়াতের মেহনত আগের মতোই চলে।

এছাড়া আশপাশে আরো অসংখ্য মাদরাসা আছে যেগুলোর ভেতরে পুরোদমে নিজামুদ্দিন মারকাজের তত্বাবধানে দাওয়াতের কাজ ব্যাপকহারে লক্ষ্য করা যায়। দারুল উলুম দেওবন্দ (ওয়াকফ্) দারুল উলুম শায়েখ জাকারিয়া, জামেয়াতুশ শায়েখ হোসাইন আহমদ মাদানী, মাদরাসয়ে উম্মে মাকতুমসহ কমপক্ষে ৩০/৩৫টি মাদরাসায় তাবলীগের কাজ নিজামুদ্দিন মারকাজের তত্বাবধানে চলছে।

এবিষয়ে জানতে চাইল, মাওলানা আহমদ আলী বলেন, এখানে নিজামুদ্দিনের তত্বাবধানে দাওয়াত ও তাবলীগের কাজ ছাড়া কথিত শুরা কিংবা অন্যকিছুর কোন অস্তিত্ব নেই। যেভাবে শতবছর ধরে তাবলীগের কাজ চলছে সেভাবেই নিজামুদ্দিনকে অনুসরণ করে চলছে। আমরা চ্যালেঞ্জ করে বলছি, আপনি গোটা দেওবন্দ ও আশপাশের একটি মসজিদও পাবেন না, যেখানে নিজামুদ্দিন ও হযরতজী মাওলানা সাদ কান্ধলভী দা.বা. এর তত্বাবধানের বাহিরে দাওয়াতের মেহনতের কোন অস্তিত্ব আছে? কথিত শুরাপন্থীদের না কোন জামাত না কোন আমলের অস্তিত্ব দেওবন্দের কোথাও পাবেন।

Facebook Comment





© All rights reserved © 2020 TabligNewsBD.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com