শনিবার, ১৭ অগাস্ট ২০১৯, ১০:৫০ অপরাহ্ন

ওজাহতি জোড়ঃ কয়লা ধইলে ময়লা যায় না

ওজাহতি জোড়ঃ কয়লা ধইলে ময়লা যায় না

সৈয়দ মবনু
————————-
জনৈক ভদ্রলো তার ছেলের সাথে হজ্বে গিয়েছেন। একজন লোক দেখলেন প্রতিদিন সবাই ঘুমিয়ে যাওয়ার পর এই ভদ্রলোক হাজিদের জুতা এদিক থেকে সেদিকে নেন, আবার সেদিক থেকে এদিকে আনেন। দেখনেওয়ালা বিষয়টির অনুসন্ধানে গিয়ে দেখলেন এই ভদ্রলোক এক সময় মসজিদে জুতা চুরি করতেন। তার ছেলে-মেয়েরা ধনি হয়ে যাওয়ার পরও সেই ভদ্রলোক পুরাতন অভ্যাস ছাড়তে পারলেন না। ছেলেরা তাই তাওবাহ করাতে হজ্বে নিয়ে এসেছেন? মক্কায় এসে আর সেই কাজ করতে সাহস হচ্ছে না, তবে পুরাতন অভ্যাস অনুযায়ি জুতাকে নাড়াচাড়া না করলে তিনি ঘুমাতে পারেন না।

কাহিনীটা ছোটবেলা একজনের কাছে শোনা। সত্যমিথ্যা আল্লাহ জানেন। আজ তাবলিগের মধ্যকার সংঘাত দেখে সেই কাহিনী বারবার মনে হচ্ছে। এদেশে যারা ইসলামী দলগুলোকে ভেঙে খন্ড-বিখন্ড করে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র গ্রুপের আমির-মহাসচিব হওয়ার মধ্যে আনন্দ খুঁজে পান তাদের হাতে এখন তাবলিগ জামায়াত হচ্ছে খন্ড-বিখন্ড। তাবলিগের মধ্যকার কিছু বিদ্রোহীকে তারা আশ্রয়-পশ্রয় দিচ্ছেন পুরাতন ভাঙা-ভাঙির অভ্যাস অনুযায়ি। তারা এখন বিভিন্ন প্রকারের জুড় করছেন একেবারে রাজনৈতিক জনসভার মতোই।

জুড়গুলোতে বক্তব্য চলছে দলভাঙার পর যেভাবে একে অন্যের বিরুদ্ধে শুধু বলেন, সেভাবেই। আমি মিরপুরে অনুষ্ঠিত ওজাহাতি জুড় সক কয়েকটি ওজাহাতি লাইভ অনুষ্ঠান দেখলাম, বক্তাদের বক্তব্য শোনলাম। মনে হলো খেলাফত আন্দোলন ভাঙার পর আমিনী গ্রুপ কিংবা শায়খুলহাদিস গ্রুপের বক্তারা একে অন্যের বিরুদ্ধে সত্য-মিথ্যা মিশ্রিত বক্তব্য দিচ্ছেন কিংবা জমিয়ত ভাঙার পর কাসেমী গ্রুপ ওক্কাস গ্রুপের বিরুদ্ধে এবং ওক্কাস গ্রুপ কাসেমি গ্রুপের বিরুদ্ধে, খেলাফত মজলিস ভাঙার পর প্রফেসর গ্রুপের বিরুদ্ধে শায়খুলহাদিস গ্রুপ,শায়খুলহাদিস গ্রুপের বিরুদ্ধে প্রফেস রগ্রুপ বক্তব্য দিচ্ছেন। বক্তব্য যেন চলছে বায়তুল মোকাররমের পূর্ব গেইটে। মজা পেয়েছি ওজাহাতি তাবলিগি ভাইদের রাজনৈতিক বক্তব্যগুলো শোনে। দারুণ একেক বক্তা। মাশাল্লাহ।

Facebook Comment





© All rights reserved © 2019 Tablignewsbd.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com
error: Content is protected !!