বৃহস্পতিবার, ২৪ Jun ২০২১, ০৫:২০ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
চলতি মাসেই চালু হচ্ছে ৫০ মডেল মসজিদ অনলাইনে বিভিন্ন গ্রুপ ও পেইজ এডমিনদের নিয়ে মাশোয়ারার  বাংলাদেশে আরবি বিস্তারের মহানায়ক আল্লামা সুলতান যওক নদভী (দা.বা) দেওবন্দে গেলেন হযরতজী মাওলানা সাদ কান্ধলভী দা.বা. মনসুরপুরীকে নিয়ে সাইয়্যেদ সালমান হুসাইনি নদভির স্মৃতি চারণ আল্লামা ক্বারী উসমান মানসুরপুরীর ইন্তেকালে বিশ্ববরেণ্য আলেমদের শোক আমীরুল হিন্দ আল্লামা ক্বারী উসমান মানসুরপুরীঃ জীবন ও কর্ম আমার একান্ত অভিভাবক থেকে বঞ্চিত হলাম : মাহমুদ মাদানী মানসুরপুরীর ইন্তেকালে জাতীয় কওমী মাদরাসা শিক্ষাবোর্ডের গভীর শোক প্রকাশ দেওবন্দের কার্যনির্বাহী মুহতামিম সাইয়েদ কারী মাওলানা উসমান মানসুরপুরী আর নেই
একসঙ্গে ইজতেমা করার কথার ভেতরে রাজনীতি আছেঃ মাওলানা আশরাফ আলী

একসঙ্গে ইজতেমা করার কথার ভেতরে রাজনীতি আছেঃ মাওলানা আশরাফ আলী

ষ্টাফ রিপোর্টার, তাবলীগ নিউজ বিডিডটকম| কোনোভাবেই একসঙ্গে তাবলিগ জামাতের বার্ষিক সম্মেলন বিশ্ব ইজতেমা করা সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন দিল্লি নিজামুদ্দিনের অনুসারী মূলধারার তাবলিগের মুরুব্বি মাওলানা আশরাফ আলী।

সোমবার (২১ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে তাবলিগের মূলধারার এক বৈঠক শেষে নিজামুদ্দিন মারকাজের অনুসারী মাওলানা আশরাফ আলী এ কথা জানান।

তিনি বলেন, আজকের বৈঠকে কোনো সিদ্ধান্ত আসেনি। মন্ত্রীরা বলেছেন, আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা করব, যাতে একসঙ্গে বিশ্ব ইজতেমা করা যায়। আমরা বলেছি, আপনারা একসঙ্গে ইজতেমা করবেন, কিন্তু প্রতিষ্ঠানটির কেন্দ্র দিল্লিতে। সেই দিল্লিতে ডিভিশন হয়েছে। সেখান থেকে ছোট্ট একটি গ্রুপ বিদ্রোহ করে বেরিয়ে গেছে। বাংলাদেশের হাতেগুনা কিছু লোক তাদের সমর্থন দিচ্ছে। পাকিস্তান থেকে এ নিয়ে ষড়যন্ত্রের জাল পাতা হয়েছে। সবকিছু বুঝে সিদ্ধান্তে আসতে হবে। মূল কেন্দ্রের সমস্যা না মিটিয়ে সেটা এখানে মেটানো সম্ভব নয়। সমস্যা যেখানে, সেখানেই মিটাতে হয়। আমরা বলেছি, একসঙ্গে ইজতেমা করতে আমাদের কোনো আপত্তি নেই। কিন্তু বাইরের যারা আসবেন তাদের নিরাপত্তার নিশ্চয়তা দিতে হবে। কিছুদিন আগে মারামারিতে আমাদের দু’জন সাথী শহীদ হয়েছেন।

তিনি দাবি করেন, এখন একসঙ্গে ইজতেমার সিদ্ধান্তে আসার কথা বলার উদ্দেশ্যই হলো, কালক্ষেপন করা। আলোচনা করে যে যার মেহমানদের নিয়ে ইজতেমা করবে, সেটাই যুক্তিযুক্ত। জোর করে দুই পক্ষকে একসঙ্গে ইজতেমা করানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হলে সেটা হবে জনগণের জন্য ক্ষতিকর। দুই পক্ষই যেহেতু ইজতেমা করবে, সুতরাং প্রত্যেকেই নিজ নিজ জায়গা এবং নিজ নিজ সময়ে আসুক, সেটাই হবে নিরাপদ।

মাওলানা আশরাফ আলী আরো বলেন, আমাদের তারিখ মতো আমরা আমাদের ইজতেমা করব, তারা তাদের তারিখ মতো করুক। সেটা ১৫ দিন পর হতে পারে। এ বিষয়ে আমরা প্রস্তাবনা দিয়েছি। সরকার বারবার একসঙ্গে বসার জন্য বলছে। দুই মাস আগে যেখানে আমাদের দু’জন মানুষ মারা গেল, প্রায় দুইশত আহত হলো, তাদের লোকজনও আহত হলো- সেখানে এতো মানুষের একসঙ্গে জমায়েত করাটা বাস্তবসম্মত কিনা সেটা বুঝতে হবে।

তিনি আরও বলেন, দেশীয় মেহমান ও তাদের নিরাপত্তা দিতে সক্ষম হলে আপনারা একসঙ্গে করুন। তবে একসঙ্গে করা বাস্তবসম্মত নয়। বর্তমান প্রেক্ষাপটে সম্ভব নয়। একসঙ্গে করতে বলার কথার ভেতরে রাজনীতি আছে। মাওলানা সাদ সারাবিশ্বের আমির। আর আলাদা ইজতেমা হলে যার যার মেহমান তাদের মতো করে আসবেন। তখন আর ভায়োলেন্স হবে না।

Facebook Comment





© All rights reserved © 2020 TabligNewsBD.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com