বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:৫১ অপরাহ্ন

বিশ্ব ইজতেমার প্রস্তুতি শুরু। ময়দানজুড়ে থাকছে সিসি ক্যামরাসহ নিশ্চিদ্র নিরাপত্তা

বিশ্ব ইজতেমার প্রস্তুতি শুরু। ময়দানজুড়ে থাকছে সিসি ক্যামরাসহ নিশ্চিদ্র নিরাপত্তা

তাবলীগ নিউজ বিডিডটকম

বিশ্ব ইজতেমার আর মাত্র ১৮দিন বাকি। গত বুধবার থেকেই পরিকল্পনা ও প্রস্তুতি নিচ্ছে প্রশাসন সহ সংশ্লিষ্টরা। আগামী ১৫ই ফেব্রুয়ারি থেকে গাজীপুরে টঙ্গীর তুরাগ নদের তীরে শুরু হতে যাচ্ছে ৫৪তম বিশ্ব ইজতেমা। তাবলীগের মুরুব্বী ও প্রশাসন সমন্বয়ে এবার এক পর্বে ইজতেমা করতে গত ২৩ জানুয়ারী বুধবার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেওয়া হয়।

তাবলিগ জামাত আয়োজিত ৫৪তম এই ইজতেমাতে এবারও বাংলাদেশসহ প্রায় ২০০টি দেশের লাখ লাখ ধর্মপ্রাণ মুসলমান অংশগ্রহণ করবেন বলে আশা করা হচ্ছে। নামাজ, জিকির-আজকার, তসবিহ-তাহলিল ও দাওয়াত ইলাল্লাহ-এর মধ্যে মশগুল থাকবেন তাঁরা। মুসল্লিদের নিরাপত্তায় সেনাবাহিনী, পুলিশ, র‌্যাব ও আনসারের সমন্বয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রায় ২০ হাজার সদস্য নিয়োজিত থাকবেন।

এন্তেজামিয়া কমিটির পক্ষ থেকে জানা গেছে, আজকালের ভিতরেই প্রশাসনের সহযোগিতায় তুরাগ ময়দানে মাঠ তৈরীর কাজ শুরু হবে। বাংলাদেশের সকল জেলার সাথী ও ঢাকা ও গাজীপুর মহানগরের তাবলীগকর্মীরা মাঠ তৈরীতে অংশ গ্রহণ করতে প্রস্তুত রয়েছেন।

 

আশা করা যাচ্ছে, সবকিছু স্বাভাবিক থাকলে আগামী ১৪ই ফেব্রুয়ারী বৃহস্পতিবার মাগরিব নামাজের পর থেকেই আমবয়ান শুরু হবে। পরদিন শুক্রবার ফজরের নামাজের পর আনুষ্ঠানিকভাবে ইজতেমার কার্যক্রম শুরু হবে। আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে ১৭ ফেব্রুয়ারি এই বছরের বিশ্ব ইজতেমা শেষ হবে।

সুষ্ঠ ও সুন্দর ভাবে ইজতেমা সম্পন্ন করার জন্য ব্যপক প্রস্তুতি গ্রহণ করছে ইজতেমা কর্তৃপক্ষ। স্বেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে চলবে ময়দানের প্যান্ডেল তৈরির কাজ।

ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের নদী পারাপারের জন্য বাংলাদেশ সেনাবাহিনী তুরাগ নদের উপর ৮টি বেইলি ব্রিজ নির্মাণ করবে। মুসল্লিদের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার জন্য টঙ্গী হাসপাতালকে ১০০ শয্যা থেকে ২০০ শয্যায় উন্নীত করা হবে।

এছাড়া এবছরও মোনাজাতের দিন মুসল্লিদের যাতায়াতের জন্য বাংলাদেশ রেলওয়ে ১৫টি বিশেষ রেলের ব্যবস্থা করবে।

এদিকে টঙ্গী রেল স্টেশনে কর্তব্যরত স্টেশন মাস্টার আব্দুর রাজ্জাক তাবলীগ নিউজ বিডিডটকমকে জানিয়েছেন, প্রতি বছরের মতো এ বছরও ইজতেমা উপলক্ষে বাংলাদেশ রেলওয়ে মুসল্লিদের রেলে যাতায়াতের জন্য ইজতেমার তিন দিন আগে থেকে প্রতিটি ট্রেন টঙ্গী স্টেশেনে ৩মিনিট করে যাত্রা বিরতি করবে। এছাড়া আখেরী মোনাজাতের দিন ১০টি বিশেষ ট্রেনের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে বাংলাদেশ রেলওয়ে।

অন্যদিকে শীত থাকায় ইজতেমায় আগত মুসল্লিরা ঠাণ্ডা-জ্বর হাঁপানিসহ নানা রোগে আক্রান্ত হতে পারেন। তাদের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে এরই মধ্যে গাজীপুরের সব হাসপাতালের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। এছাড়া টঙ্গী সরকারি হাসপাতালকে ১০০ শয্যা থেকে ২০০ শয্যায় উন্নিত করার জন্য হাসপাতালের স্থান বারান্দায় বর্ধিত করা হবে বলে জানা গেছে। এছাড়াও ২৪ ঘণ্টা সেবা দেওয়ার জন্য সার্বক্ষণিক ডাক্তার নিয়োজিত থাকবেন বলে জানিয়েছেন গাজীপুরের সিভিল সার্জন।

পুলিশের তথ্যমতে এবারের ইজতেমায় বিশ্বের ১৫০টি দেশ থেকে মুসল্লিরা আসবেন। তবে ইজতেমা আয়োজকরা আশা করছেন বিশ্বের ২০০টি দেশ থেকে মুসল্লিরা ইজতেমায় অংশ নেবেন। ইতোমধ্যে তাদের আমন্ত্রণপত্র তৈরীর কাজ সম্পন্ন হয়েছে বলে জানিয়েছেন কাকরাইলের একাধিক সূত্র।

মুসল্লিদের নিরাপত্তার জন্য ২০ হাজার আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সার্বক্ষণিক নিয়োজিত থাকবেন।

ইজতেমা ময়দান ২০০টি সিসি টিভির মাধ্যমে মনিটরিং ও আকাশ পথে হেলিকপ্টার দিয়ে মহড়া দেওয়ারও প্রস্তুতি নিয়েছে র্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন (র্যাব)।

Facebook Comment





© All rights reserved © 2020 TabligNewsBD.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com