শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৪:০৪ অপরাহ্ন

এই নাটক আমাদের চেনা হয়ে গেছে

এই নাটক আমাদের চেনা হয়ে গেছে

 

মোহাম্মদ শহীদুল ইসলাম মিলন, অতিথি লেখক,তাবলীগ নিউজ বিডিডটকম।

একটি গল্প দিয়েই শুরু করি।আমার এক খালা খুবই সৌখিন মহিলা ছিলেন । সবসময় ফিটফাট থাকতে পছন্দ করতেন । তাঁর ছোট ছোট কয়েকজন ভাইবোন ছিল। পশ্রাব পায়খানার ভয়ে বাচ্চাদের কোলে নিতো না।  নানী খালাকে বাধ্য করতেন বাচ্চাদেরকে কোলে নিতে। না নিলে খবর হতো।

 

খালা এক বুদ্ধি বের করলো। কোলে নিয়েই  গোপনে বাচ্চাকে চিমটি দিতো। বাচ্চা সাথে সাথে হাউমাউ করে কেঁদে দিতো।

মাঝেমাঝে চিমটি না কোলাতে পেরে খালার মুখে বাচ্চারা হঠাৎ বেসামাল হয়ে চড়ও মারতো। আর খালা এতেই বাচ্চাদের বেয়াদব, খারাপ ইত্যাদি বলতো।

 

খালা অভিনয় করে বলতো, আমি কি করি !  মন চায় ওদের কোলে নিতে। কি যে করি! ওরা কোলে নিলেই কেন যে কাঁদে!

এগুলো সবই খালার নাটক, অথচ ভিতরে ছিল অন্যটা।

 

তবে খালার বিয়ের পর যখন দীর্ঘদিন বাচ্চা হচ্ছিল না, বাচ্চার জন্য তখন হাহাকার শুরু হলো। নিজের কোল তখন খালি খালি লাগতো। অন্যের বাচ্চাকে কোলে নিয়ে চিমটি দিবেতো দূরের কথা, বরং বুকে জড়িয়ে ধরে আদর করতো, এটা ওটা   খাওয়াতো।

 

দীর্ঘদিন পর বাচ্চাও হলো। ফিটফাট ভাবও আর নাই।

এখন অন্যের বাচ্চাকে কোলেও নেয়, চিমটিও দেয় না, বাচ্চারাও কাঁদে না।

 

১ ডিসেম্বরে টঙ্গীর মাঠের ভিতরে আমাদের যাওয়ার ইচ্ছা কখনোই ছিল না। কিন্তু উনাদের ইচ্ছাকৃত অনবরত চিমটিই ছিল মূল কারণ!

 

মানুষের ধৈর্য্যের একটা সীমা থাকে। বাচ্চারাও চিমটি কোলাতে না পেরে যেমন একটা কিছু করতে চায়, আমাদের অবস্থাও অনেকটা তেমনই হয়েছিল।

 

আবার আরেক নাটক শুরু হয়েছে, উনারা আমাদের সাথে একত্রে  ইজতেমা করবে বলে মরিয়া! কিন্তু ঐক্যের পরদিন থেকেই ঐক্য ভঙ্গের চিমটি কাটতে থাকলেন খালার মতো। নাটকের পর নাটক সাজালেন।

 

আমার কথা হলো, খালার কোলে আর উঠবার চাইনা। খালাকে চিনে ফেলেছি।  আগে খালার বিয়ে হোক, তারপর।  খালার মতো খোলে তুলে নিয়ে চিমটি দিচ্ছেন আর বাচ্চা বিরক্ত হয়ে একটু তাপ্পর দিতেই বেয়াদব আর ঐক্য বিরোধী বলা শুরু হয়েছে।  এই নাটক আমাদের চেনা।

 

এক বছর উনারা আলাদা ইজতেমা করুক আমরাও করি। তারপর অনুভূতির পরিবর্তন আসলে দেখা যাবে।

Facebook Comment





© All rights reserved © 2020 TabligNewsBD.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com