বুধবার, ০৩ মার্চ ২০২১, ০২:৫৭ পূর্বাহ্ন

বিশ্ব ইজতেমা চলাকালীন রাজধানীতে গাড়ি চলবে যেভাবে

বিশ্ব ইজতেমা চলাকালীন রাজধানীতে গাড়ি চলবে যেভাবে

ষ্টাফ রিপোর্টার, তাবলীগ নিউজ বিডিডটকম 

আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে দুই পর্বে শুরু হতে যাচ্ছে মুসলিম বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তর আসর ঐতিহাসিক বিশ্ব ইজতেমা। ১৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত প্রথম পর্বে এবং ১৭-১৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত দ্বিতীয় পর্বে এই বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠিত হবে।

 

টঙ্গীর তুরাগতীরে অনুষ্ঠিত হওয়া এই আসরে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মেহমানরাসহ দেশের অভ্যন্তরের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে লাখ লাখ মুসল্লিরা সমবেত হবেন।

 

ধর্মীয় জমায়েত নির্বিঘ্ন করতে ইতিমধ্যে বিশ্ব ইজতেমা দুই পর্বে সম্পন্ন করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এ বিপুলসংখ্যক ধর্মপ্রাণ মানুষের যাতায়াত নির্বিঘ্ন করতে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ যানবাহন পার্কিংয়ের জন্য নিম্নোক্ত স্থানগুলো নির্ধারণ করেছে।

 

গাড়ি পার্কিং-সংক্রান্ত তথ্যাদি:

 

১। রেইনবো ক্রসিং থেকে আব্দুল্লাহপুর হয়ে ধউর ব্রিজ পর্যন্ত এবং রামপুরা ব্রিজ থেকে প্রগতি সরণি পর্যন্ত রাস্তা ও রাস্তার পাশে কোনো যানবাহন পার্কিং করা যাবে না।

 

২। ইজতেমায় আগত সম্মানিত মুসল্লিদের যানবাহনগুলো নিম্নবর্ণিত স্থানসমূহে (বিভাগ অনুযায়ী) যথাযথভাবে পার্কিং করবেন।

 

ক) চট্টগ্রাম বিভাগ পার্কিং: গাউসুল আজম এভিনিউ (১৩নং সেক্টর রোডের পূর্বপ্রান্ত থেকে পশ্চিমপ্রান্ত হয়ে গরীবে নেয়াজ রোড)।

 

খ) ঢাকা বিভাগ পার্কিং: সোনারগাঁও জনপথ চৌরাস্তা থেকে দিয়াবাড়ি খালপাড় পর্যন্ত।

 

গ) সিলেট বিভাগ পার্কিং: উত্তরার ১৫নং সেক্টর খালপাড় থেকে দিয়াবাড়ি গোলচত্বর পর্যন্ত।

 

ঘ) খুলনা বিভাগ পার্কিং: উত্তরার ১৭ ও ১৮নং সেক্টরের খালি জায়গা (প্রধান সড়কসহ)।

 

ঙ) রংপুর, রাজশাহী ও ময়মনসিংহ বিভাগ পার্কিং: প্রত্যাশা হাউজিং।

 

চ) বরিশাল বিভাগ পার্কিং: ধউর ব্রিজ ক্রসিংসংলগ্ন বিআইডব্লিউটিএ ল্যান্ডিং স্টেশন।

 

ছ) ঢাকা মহানগর পার্কিং: উত্তরার শাহজালাল এভিনিউ, নিকুঞ্জ-১ এবং নিকুঞ্জ-২ এর আশপাশের খালি জায়গা।

 

৩। নির্ধারিত পার্কিং স্থানে মুসল্লিবাহী যানবাহন পার্কিংয়ের সময় অবশ্যই গাড়ির চালক/হেলপার গাড়িতে অবস্থান করবেন এবং মালিক ও চালক একে অপরের মোবাইল নম্বর নিয়ে রাখবেন, যাতে বিশেষ প্রয়োজনে তাৎক্ষণিকভাবে পারস্পরিক যোগাযোগ করা যায়।

 

ডাইভারসন-সংক্রান্ত তথ্যাদি:

৪। ডাইভারসন পয়েন্টগুলো (শুধুমাত্র আখেরি মোনাজাতের দিন আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ খ্রি. ও ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ খ্রি. ভোর ৪টা থেকে)।

 

⇒ মহাখালী ক্রসিং

⇒ হোটেল রেডিসন গ্যাপ

⇒ প্রগতি সরণি

⇒ কুড়িল ফ্লাইওভারের নিচে লুপ-২

⇒ ধউর ব্রিজ

⇒ বেড়িবাঁধ-সংলগ্ন উত্তরা ১৮নং সেক্টরের প্রবেশমুখ

 

৫। ডাইভারসন চলাকালীন:

♦ আশুলিয়া থেকে আব্দুল্লাহপুরগামী যানবাহনগুলো আব্দুল্লাহপুর না এসে ধউর ব্রিজ ক্রসিং দিয়ে ডানে মোড় নিয়ে মিরপুর বেড়িবাঁধ দিয়ে চলাচল করবে।

 

♦ মহাখালী বাস টার্মিনাল থেকে আব্দুল্লাহপুরগামী আন্তঃজেলা বাস, ট্রাক, কাভার্ডভ্যানসহ সব প্রকার যানবাহন মহাখালী ক্রসিংয়ে বামে মোড় নিয়ে বিজয় সরণি-গাবতলী দিয়ে চলাচল করবে।

 

♦ কাকলী, মিরপুর থেকে উত্তরাগামী বড় বাস, ট্রাক, কাভার্ডভ্যানগুলোকে হোটেল রেডিসন গ্যাপে ডাইভারসন প্রদান করা হবে। উল্লিখিত যানবাহনগুলোকে বিকল্প সড়ক ব্যবহারের জন্য বলা হলো।

 

♦ কাকলী, মিরপুর থেকে উত্তরাগামী প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাস, সিএনজিগুলোকে নিকুঞ্জ-১ গেটের সামনে ডাইভারসন প্রদান করা হবে। উল্লিখিত যানবাহনগুলোকে বিকল্প সড়ক ব্যবহারের জন্য বলা হলো।

 

♦ প্রগতি সরণি থেকে আব্দুল্লাহপুরগামী যানবাহনগুলো কুড়িল ফ্লাইওভারের নিচে লুপ-২ এ ডাইভারসন প্রদান করা হবে। উল্লিখিত যানবাহনগুলোকে বিকল্প সড়ক ব্যবহারের জন্য বলা হলো।

 

♦ বিশ্ব ইজতেমা-২০১৯ এর আখেরি মোনাজাতের দিন অর্থাৎ ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ও ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ তারিখ বিমান অপারেশনস ও বিমান ক্রু বহনকারী যানবাহন, ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর গাড়ি ও অ্যাম্বুলেন্স বিমানবন্দর সড়ক ব্যবহার করে চলাচল করতে পারবে।

 

♦ বিশ্ব ইজতেমা-২০১৯ এর আখেরি মোনাজাতের দিন ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ তারিখ বিমানের অপারেশনস ও বিমান ক্রু বহনকারী যানবাহন, ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর গাড়ি ও অ্যাম্বুলেন্স ছাড়া সব প্রকার যানবাহনের চালকগণকে বিমানবন্দর সড়ক পরিহার করে বিকল্প হিসেবে মহাখালী, বিজয় সরণী হয়ে মিরপুর-গাবতলী হয়ে যাতায়াত করবে।

Facebook Comment





© All rights reserved © 2020 TabligNewsBD.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com