রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৬:০৬ পূর্বাহ্ন

আলমী শূরার ব্যাবসা ঘুটানোর বিদায়ী হালখাতা

আলমী শূরার ব্যাবসা ঘুটানোর বিদায়ী হালখাতা

ইমরান শাহ মোজাদ্দেদী, তাবলীগ নিউজ বিডিডটকম

আজকের দিনটি সবাই স্মরন রাখবেন। সরকারী আইন অমান্য করে পাকিস্তান থেকে আলমী শূরার বড়বড় নেতা ও দিল্লীর নিজামুদ্দীন মারকাজের বিদ্রোহী আলমী শূরার নেতাদের আজকের দিনটি বিদায়ী হালখাতার। হালখাতার পরে ব্যাবসায়ীরা পুজি তুলে আবার ব্যবসা চাঙ্গা করেন। তবে কেউ কেউ ব্যবসা ঘুটিয়ে বাড়িতেও চলে যান, ময়দানে বাকী পড়ে থাকা পুঞ্জিপাট্টা এসব আর উঠানোর সুযোগ হয় না।

এবার পাকিস্তানপন্থী আলমী শূরাওয়ালাদের অবস্থা তাই হয়েছে। আজ দুপুর থেকে গাট্টি, পুটলী আটিয়ে তারা ব্যবসা বন্ধ করে চলে যাচ্ছেন। বিগত এক বছর বাংলাদেশে ওজাহাতি নষ্ট রাজনীতি করে যে চরম ব্যার্থ হয়েছেন তার প্রমান বিশ্ব ইজতেমা। নিজামুদ্দিন বিদ্রোহী সবোর্চ্ছ ব্যক্তিদের সরকারি আইন অমান্য করে আনা হল। আনা হল পাকি লিডারদের। ডামাডোল দেয়া হল মাঠো ছাত্র কালেকশন বাড়াতে তারিক জামিলের, যে তিনি ময়দানে অবস্থসন করছেন।এত কিছুর পর এটাই প্রমাণিত হল সারা দুনিয়ায় আলমী শূরাওয়ালারা কতোটা প্রত্যাখিত হয়েছেন। কয়োকশ বিদেশি মুসল্লী দিয়ে এবছর ইজতেমা করলেন পরাজিত বিদ্রোহীরা। মিডিয়ায় এত দেশ, ওত দেশ মাহফুজদের ডামাডোল থাকলেও এসব দেশ থেকে ৯০ভাগই ছিলন বাংলাদেশি প্রবাসী। এছাড়া ভুল তথ্য দিয়ে নিজামুদ্দিন অনুসারী কিছু বিদেশীকে এয়ারপোর্ট থেকে ময়দানে নিয়ে যান বিদ্রোহী শূরাপন্থীরা।

 

এত কিছুর পর তাবলীগের সাথী ও সাধারন মুসল্লীদের উপস্থিতি ছিল হাতে গোনা। মাঠজুড়ে কেবল ছিল দাড়িবিহীন নাবালগ মাদরাসার ছাত্র। তাদের অদক্ষ হাতে তাবলীগের কাজ ও রান্নাবান্নায় সিলেন্ডার বিস্ফোরনে ২শতাধিক মুসল্লী আহত হওয়ার মতো দুর্ঘটনা ঘটে। বিবিসির সাংবাদিক আকবর গতকাল বলেছেন, খালি চোখেই ধরা পড়ে এবছর মাঠ ভরতে কি পরিমান মাদরাসার ছাত্র আনা হয়েছে। দেশের সকল কওমী মাদরাসা বন্ধ করা হয়েছে। এই প্রথম হেলিকপ্টার দিয়ে আল্লামা আহমদ শফীকে মাঠে আনা হল। আর ইজতেমার মূল মসকসাদ, আল্লাহর রাস্তায় খুরুজের কথা নাই বা বললাম। আজ পর্যন্ত তাশকিলের কামরাগুলো ছিল খা খা।

 

আলমী শুরার ডাকে এবছর ১০ জন আরব ইজতেমায় এসেছেন। ৪ জন বাহরাইনের, ২ জন শেখ ফাজেল এবং শেখ গাসসান বাকি ৪ জনের পরিচয় পাওয়া যায় নাই। অথচ গতবার অর্থাৎ ২০১৮ তে এত ঝড় ঝাপটার মধ্যেও ১৫৩০ জন আরব আসছিল । এটা শুধু যারা মনে করেছিল হযরতজি মাওলানা সাদ কান্ধালভী দা:বা: ইজতিমায় অংশ নিচ্ছেন এবং সেটা মনে করে সরাসরি টঙ্গী বা আগে এসেছিল তাদের হিসাব।বাকি যারা সরাসরি কাকরাইল এসেছিল হযরতজি কাকরাইল অবরুদ্ধ জেনে তাদের সংখ্যা এই ১৫৩০ জনের বাইরে।গতবার জর্ডানের আমির শেখ খতিব বয়ান করেছিল আলমি ফিতনাবাজদের ধোকাবাজিতে পড়ে । এটা দেখে কিছু হিপোক্রেইটরা বলা শুরু করেছিল হযরতজি ইলিয়াস রহ: এর ভবিষ্যতবানী সত্যি হতে চলেছে যে একসময় এই মেহনত আওয়াম থেকে আলেম , আলেম থেকে আরবদের কাছে যাবে। শেখ খতিবের বয়ান নাকি সেটারই সাইন ছিল! অথচ টঙ্গি ইজতিমাতে এর আগেও একাধিকবার আরবরা বয়ান করেছে।

 

যাইহোক , সেই শেখ খতিব এবার আসেন নাই।এবার বয়ান করেছে জুম্মার পর শেখ ফাজেল যিনি নিজেই এই আলমি শুরার অন্যতম উদোক্তা মানে শেখ গাসসান আর শেখ ফাজেল হল আলমি শুরার বান্ধা কাস্টমার! যাদের কথা পুরো আরব বিশ্ব ঘৃনার সাথে প্রত্যাখান করেছে। এই দুইজনই অনেক আগে থেকেই এই মেহনত থেকে দুরে কারন উনারা নিজেরা আরব হওয়া সত্বেও তাবলীগের নবিওযালী মেহনত ছেড়ে উপমহাদেশীয় বেলায়েতি খানকার মেহনত শুরু করেছিলেন বেশ আগে থেকেই।

 

টঙ্গী ইজতিমাকে কেন বিশ্ব ইজতিমা বলা হোত?

* কারন এই ইজতিমায় তাবলীগ জামাতের বিশ্ব আমির মাওলানা সাআদ সাহেব দাঃবাঃ অংশ নিতেন ।

*  এই ইজতিমায় তাবলীগ জামাতের বিশ্ব মারকাজ নিযামুদ্দিনের মুরুব্বিরা অংশ নিতেন ।

* এই ইজতিমায় বিশ্বের প্রায় একশতরেও কম বেশী দেশের তাবলীগ জামাতের জিম্মাদার এবং তাবলীগ কর্মীরা অংশ নিতেন ।

 

বিগত তিনবছর অর্থাৎ ২০১৬ তে ৯৭ টি দেশ, ২০১৭ তে ৯০ টি দেশ এবং ২০১৮ তে ৮৮ টি দেশের তাবলীগ জামাতের জিম্মাদার এবং তাবলীগ কর্মীরা অংশ নেন ।  এইসকল জিম্মাদার এবং তাবলীগ কর্মীরা তাদের স্ব স্ব দেশের তাবলীগের কাজের বিভিন্ন কারগুজারি প্রদানের পর প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা নিতেন বিশ্ব আমির মাওলানা সাদ কান্ধালভী দাঃবাঃ কাছ থেকে ।

সমগ্র দুনিয়ার তাবলীগের কাজের পূরা চিত্র এই মুহূর্তে তাবলীগের বিশ্ব আমির মাওলানা সাদ সাহেবের দাঃবাঃ সামনেই আছে এবং ভারতের ভিসা প্রাপ্তি তুলনামূলকভাবে কঠিন হওয়ার কারনে বিশেষত মুসলিম প্রধান দেশগুলির প্রথম পছন্দ বাংলাদেশ ছিল এবং এখানেই মাওলানা সাদ সাহেবকে পাওয়া যেত।

 

ইজতিমার ময়দানে এশার নামাযের পর থেকে মোটামুটি রাত ৯ঃ৩০/ ১০টার দিকে শুরু হয়ে রাত ১১/১২ টা পর্যন্ত এবং দুই ইজতিমার মধ্যবর্তী সময় অর্থাৎ রবিবার রাত, সোমবার, মঙ্গল, বুধবার সকাল এবং রাতে একটানা এই মাসোয়ারা হত।

Facebook Comment





© All rights reserved © 2020 TabligNewsBD.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com