শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০১:২৩ পূর্বাহ্ন

হেফাজতীরা মসজিদে ঢুকতে না দেওয়ায় তাবু টাঙিয়ে থাকছেন তাবলীগীরা

হেফাজতীরা মসজিদে ঢুকতে না দেওয়ায় তাবু টাঙিয়ে থাকছেন তাবলীগীরা

গাজীপুর প্রতিনিধি; তাবলীগ নিউজ বিডিডটকম

সদ্য সমাপ্ত বিশ্ব ইজতেমার পর থেকে একের পর বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলায় তাবলীগ জামাতের উপর হামলার খবর পাওয়া যাচ্ছে। হেফাজতে ইসলামের নেতা কর্মীরা তাদের মসজিদ থেকে মারধর করে বের করে দিচ্ছেন। অনেক জামাত মসজিদে জায়গা না পেয়ে বাহিরে তাবু টানিয়ে রাত যাপন করছে খোলা আকাশের নীচে, কনকনে শীতের রাতে।

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলায় একটি তাবলিগ জামাতকে মসজিদ থেকে বের করে দিয়েছেন হেফাজতপন্থীরা। শনিবার রাতে উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নের সাইটালিয়া গ্রামের একটি মসজিদে এ ঘটনা ঘটে।

মসজিদ থেকে বের করে দেয়া তাবলিগ জামাতের সদস্যরা জানান, দিনাজপুরের বোঁচাগঞ্জ উপজেলা থেকে গত বৃহস্পতিবার শ্রীপুরে আসেন তারা। শনিবার বিকেলে উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়ননের সাইটালিয়া পশ্চিমপাড়া কাছম আলী জামে মসজিদে অবস্থান নেন। সর্বশেষ সম্পন্ন হওয়া ইজতেমার এক চিল্লা দাওয়াতের কাজে এখানে এসেছেন তারা।

এদিকে কাছম আলী জামে মসজিদে একটি তাবলিগ জামাত এসেছেন সংবাদ পেয়ে স্থানীয় আব্দুস সামাদের ছেলে নাসির উদ্দিনের নেতৃত্বে মসজিদে এসে বাঁধা দেন জোবায়েরপন্থী হেফাজতীরা। একই সঙ্গে শনিবার রাতেই তাবলিগ জামাতকে মসজিদ থেকে বের করে দেন তারা। পরে মসজিদের পাশের বাসিন্দা আবুল কালামের বাড়ির আঙিনায় তাঁবু টাঙিয়ে দাওয়াতি কার্যক্রম পরিচালনা করেন জামাতের সাথীরা । রোববার সকালে সেখান থেকেও তাদের বের করে দেন হেফাজতীরা।

এ বিষয়ে মসজিদ কমিটির সভাপতি গোলাম রসুল টিটু বলেন, বর্তমানে বিষয়টি আমার এখতিয়ারের বাইরে। এ ব্যাপারে মসজিদের ক্যাশিয়ার নাসির উদ্দিন, মসজিদের ইমাম আল আমিন, তাইজ উদ্দিন ও হাফিজসহ মসজিদ কমিটি সিদ্ধান্ত নেবেন।

তাবলিগ জামাতকে মসজিদ থেকে বের করে দেয়ার বিষয়টি স্বীকার করে নাসির উদ্দিন বলেন, যতই ঝামেলা হোক, কোনো অবস্থাতেই সাদপন্থীদের মসজিদে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না। তাদের বিনীতভাবে অনুরোধ করা হয়েছে মসজিদে ছেড়ে দিয়ে অন্য কোথাও অবস্থান নিতে।

তাবলিগ জামাতের আমির রবিউল ইসলাম বলেন, আমরা আল্লাহর রাস্তায় মেহনত করতে এসেছি অথচ আমাদের মসজিদ থেকে বের করে দেয়া হয়েছে। রাতে আমরা মসজিদের বাইরে তাঁবু টাঙিয়ে খোলা আকাশের নিচে অবস্থান করি। সেখান থেকেও আমাদের চলে আসতে বাধ্য করল তারা।

আল্লাহর রাস্তায় আমাদের নবী আরো অনেক কষ্ট করেছেন। আমরা রোজা রেখে আল্লাহর কাছে দোয়া করেছি তাদের হেদায়াতের জন্য।

Facebook Comment





© All rights reserved © 2020 TabligNewsBD.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com