রবিবার, ০৭ মার্চ ২০২১, ০৯:০৬ অপরাহ্ন

এবার ওয়াজ মাহফিলে নেমেছেন তাবলীগের মূলধারাচ্যুত মুরুব্বীরা

এবার ওয়াজ মাহফিলে নেমেছেন তাবলীগের মূলধারাচ্যুত মুরুব্বীরা

নিজস্ব প্রতিনিধি, তাবলীগ নিউজ বিডিডটকম

বাংলাদেশে চমকে উঠার মতো একটি খবর গোটা ইসলামী অঙ্গনে আলোচনার ঝড় তুলেছে। তাবলীগ জামাতের শত বছরের চিরচেনা নিয়ম ও কাকরাইলের চিরাচরিত রক্ষণশীলতা ভেঙ্গে প্রচলিত ওয়াজ মাহফিলে নেমেছেন তাবলীগের মূলধারাচ্যুত একাধিক মুরুব্বী। গত একবছর ধরে তাবলীগের বিশ্ব আমীর মাওলানা সাদ কান্ধলভীর বিরোধিতা করতে গিয়ে তাবলিগের উসুলের খেলাফ এসব মুরুব্বিরা নতুন আবিষ্কৃত নানান ওজাহাতি জোড়/সমাবেশ করলে সরাসরি ওয়াজের মাঠে তাদের শীর্ষ মুরুব্বীদের কখনো দেখা যায় নি। তবে এবার শীত মওসুম থেকে তাবলীগের মূলধারাচ্যুত ২য় সারির কিছু মুরুব্বী নানান মৌসুমি ওয়াজে বয়ান করতে দেখা গেলেও এখন প্রথম সারির শূরাপন্থী নেতারা ওয়াজের মাঠে নেমেছেন।

গতকাল চট্টগ্রাম জমিয়তুল ফালাহ ময়দানে হেফাজতে ইসলামের সম্মেলনে অন্যতম প্রধান মেহমান হিসাবে বক্তব্য রাখেন কাকরাইল মসজিদের তাবলীগের মূলধারাচ্যুত মুরুব্বি মাওলানা জুবায়ের। এছাড়া আগামী ৮মার্চ উত্তরগাও দারুল উলুম ইসলামিয়া মাদরাসার বার্ষিক মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসাবে কাকরাইলের মূলধারাচ্যুত বিদ্রোহী মুরুব্বী মাওলানা ওমর ফারুকের নামে ব্যাপক পোষ্টারিং করা হয়েছে।

তাবলীগের শীর্ষ এই দুই মুরুব্বী সরাসরি ওয়াজ মাহফিল ও সমাবেশে অংশ গ্রহণ এবং তাদের নাম প্রধান অতিথি ও প্রধান মেহমান হিসাবে পোষ্টারিং করা নিয়ে বিস্মৃত তাবলীগের সাথীরা। তারা বলছেন, যেখানে তাবলীগের বিশ্ব ইজতেমাসহ যাবতীয় জোড় ও জেলা ইজতেমা করা হয় ঐতিহ্য অনুযায়ী সুন্নতের আলোকে গাশত করে। এর জন্য যেমন কোন পোষ্টারিং, মাইকিং প্রচলিত ধারার কোন প্রচারনা হয় না, এমনকি তাবলীগের কোন বয়ানের আগে আলোচকের নামও বলা হয় না আর তাবলীগের অতীতে কোন মরুব্বী এরকম কোন মাহফিল বা সমাবেশ করার ইতিহাসও নেই। সেখানে স্পষ্ট পোস্টার ছেপে প্রচলিত প্রধান অতিথি সেজে তাদের এসব মাহফিল করা এখন স্পষ্টভাবে প্রমাণিত হয়েছে যে, তারা তাবলীগের চিরাচরিত মূলধারা থেকে ছিটকে পড়ে করুণ পরিণতির দিকে ধাবিত হচ্ছেন।

এ বিষয়ে সাভার মারকাজুল উলুম আশ শারয়িয়ার মুহতামিম মাওলনা জিয়া বিন কাসিম বলেন, এরকম মাহফিলে কাকরাইলের আহলে শুরার মতো গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি বয়ান করা তাবলিগের শাশ্বত মেজাজ ও ইতিহাস পরিপন্থী। মসজিদ ছেড়ে মাঠে ময়দানে রেওয়াজী ওয়াজ কখনো আমাদের বড়রা করেন নি। যে মাহফিলে তাশকিল নেই, খুরুজের ফিকির নেই, বয়ানের পর খুরুজের তরতিব নেই সেটা তাবলীগীধারার কোন কাজ নয়।

হেফাজতের শানে রেসালত সম্মেলন তো ইজতেমার মতোই একটি দ্বীনী মাহফিল, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ইজতিমায় “আসসালাতু জামিয়া” সেই এলানের উপর সবাই জমা হয়। আল্লাহর রাস্তায় বের হওয়ার জন্য সবাই জমা হয়, বয়ান শুনার জন্য কেউ যায় না। এই শানে রেসালত কি উদ্দেশ্যে হয়েছে আর ইজতিমাগুলো কি উদ্দেশ্যে হয়? দুইটা সম্পূর্ন ভিন্ন জিনিস। জোবায়ের সাহেব যে জন্য পরিচিতি পেয়েছেন সেই নিযামুদ্দিনের তাবলিগ বা ‘ইলিয়াস রহ তাবলিগের’ সাথে এখন উনাদের যে কোন সম্পর্ক নেই এটিই প্রমানিত হচ্ছে। যুবায়ের সাহেব হয়ত ভিন্ন ধারার কোন তাবলিগ চালু করছেন, করুক, তাতে আমাদের কোন আপত্তি নাই।

Facebook Comment





© All rights reserved © 2020 TabligNewsBD.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com