শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫:৫৮ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
হাটহাজারী মাদরাসা বন্ধ ঘোষনা এক আল্লাহ জিন্দাবাদ… হাটহাজারী মাদরাসায় ছাত্রদের বিক্ষোভ ভাঙচুর : কওমীতে নজিরবিহীন ঘটনা ‘তাবলিগের সেই ৪ দিনে যে শান্তি পেয়েছি, জীবনে কখনো তা পাইনি’ তাবলীগের কাজকে বাঁধাগ্রস্থ করতে লাখ লাখ রুপি লেনদেন হয়েছে: মাওলানা সাইয়্যেদ আরশাদ মাদানী দা.বা. (অডিওসহ) নিজামুদ্দীন মারকাজ বিশ্ব আমীরের কাছে বুঝিয়ে দিতে আদালতের নির্দেশ সিরাত থেকে ।। কা’বার চাবি দেওবন্দের বিরোদ্ধে আবারো মাওলানা আব্দুল মালেকের ফতোয়াবাজির ধৃষ্টতা:শতাধিক আলেমের নিন্দা ও প্রতিবাদ একান্ত সাক্ষাৎকারে সাইয়্যেদ আরশাদ মাদানী :উলামায়ে হিন্দ নিজামুদ্দীনের পাশে ছিলেন, আছেন, থাকবেন তাবলীগের হবিগঞ্জ জেলা আমীর হলেন বিশিষ্ট মোহাদ্দিস মাওলানা আব্দুল হক দা.বা.
এবার ওজাহাতিদের ওয়াজ মাহফিলে মহিলা প্রধান অতিথি

এবার ওজাহাতিদের ওয়াজ মাহফিলে মহিলা প্রধান অতিথি

টঙ্গী প্রতিনিধি, তাবলীগ নিউজ বিডিডটকম

বর্তমান সময়ে শীর্ষ ওজাহাতি নেতা টঙ্গীর মাওলানা মাসউদুল করিম। টঙ্গীর মাঠ দখল সহ সকল সাংঘর্ষিক কাজে জুবায়েরপন্থীদের অন্যতম নীতিনির্ধারকদের একজন তিনি। সেই মাওলানা মাসউদুল করিম প্রধান বক্তা হলেও গতকাল মঙ্গলবার কালিগঞ্জের একটি মাদরাসার দস্তরে ফজিলত উপলক্ষে ওয়াজ মাহফিলে প্রধান অতিথি ছিলেন সংসদ সদস্য জনাব মেহের আফরোজ চুমকী।

৫৪তম বিশ্ব ইজতেমার আখেরী মুনাজাতে প্রতি বছরের ন্যায় মাঠের পাশে, রাস্তা ও বাসার ছাদে স্থানীয় মহিলারা দোয়ায় শরীক হওয়া নিয়ে নানান অপপ্রচার করছিলেন ওজাহাতিরা।

বিশেষ করে জামেয়া রাহমানিয়ার মুহতামিম মুফতী মনসুরুল হক এক বয়ানে বলেন, এতায়াতিরা নারী ভাড়া করে ইজতেমায় এনেছিল। এমন জঘন্যতম মিথ্যাচার নিয়ে যখন ওজাহাতি নেতারা ব্যস্ত, ঠিক তখনই তাদের একটি ওয়াজ মাহফিলে নারীকে প্রধান অতিথি করে ওয়াজ মাহফিল করতে দেখা গেল।

এই ওজাহাতি নেতাদের হাতে তাবলীগের কাজ চলে গেলে কতোটা অনিরাপদ ও বেহাল দশা হবে, এই ঘটনা তাদের উৎকৃষ্ট প্রমান।

দ্বীনের নামে নিজস্ব সিস্টেম চালু ও নিজেদের সকল ভুল কাজকে সঠিক বলে চালিয়ে দিয়ে দ্বীনের মারাত্মক বিকৃতি করে জনগণকে বিভ্রান্ত করছেন কতিপয় স্বার্থবাজ আলেম। তাদের একের পর এক বেদাতি কার্যক্রম দেখে বিস্মৃত দ্বীনদার মানুষ।

এ প্রসঙ্গে দারুল উলূম উত্তরার প্রতিষ্ঠাতা মাওলানা মু’আয বিন নূর বলেন, এক হাদিসে বর্ণিত আছে, افعل ما شئت، كما تدين تدان অর্থাত যা ইচ্ছা হয় তাই করতে থাকো। তবে মনে রেখো, যেমন কর্ম তেমন ফল। আরেকটি হাদিসের মর্ম হলো, অন্যায়ভাবে কোন মুসলমানকে উপহাস করে লজ্জা দিলে সেই অন্যায়ে লিপ্ত হয়ে লজ্জিত হওয়ার পূর্বে ঐ উপহাসকারীর মৃত্যু হবে না।

আজ আমরা এই হাদীসগুলোর বাস্তব প্রয়োগ দেখতে পাচ্ছি। যারা রুজু রুজু করে মুখে ফেনা তুলতো তারাই আজ জনসমক্ষে রুজু করতে বাধ্য হচ্ছে। যারা মূলধারার বিশ্ব ইজতেমায় নারীর অংশগ্রহণ নিয়ে অপপ্রচার চালালো তারাই আজ তাদের মাহফিলে নারীকে উঠাচ্ছে।

এরপরও কি আমরা সতর্ক হবো না?

Facebook Comment





© All rights reserved © 2020 TabligNewsBD.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com