বৃহস্পতিবার, ১৬ মে ২০১৯, ১১:২০ অপরাহ্ন

আলমী শূরার কফিনে শেষ পেরেক

মাওলানা সাইফুল্লাহ বিন নুরী, উপদেষ্টা , তাবলীগ নিউজ বিডিডটকম 

এবার কথিত আলমী শূরার কফিনে শেষ পেরেক ঠুকে এর অস্তিত্ব এককবারে বিলিন হয়ে গেল খোদ পাকিস্তানেই।  ১৮ ই মার্চ রোজ সোমবার রাত্র ১২ টা ৩০ মিনিটে ইন্ডিয়া থেকে আগত মাওঃ ইব্রাহিম সাহেব ও মাওঃ আহমাদ লাট সাহেব সহ ১৮ জনের একটি জামাত রায়ব‍্যনডের হাবিলিতে এক কামরায় একত্রিত হন।

 

মাওঃ এহসানুল হক সাহেবের সাথে ভাই ইয়ামি,ন মাওঃ আহমাদ বাটলা, মাওঃ খুরশিদ ডাক্তার নাদীম আশরাফ ডঃ সালীম মাওঃ এফতেখার মাওঃ জিয়াউল হক সাহেব রাও ঐ মজলিসে উপস্থিত ছিলেন।

 

পাকিস্তানের শুরার প্রায় ১৯ জন শুরাদেরকেও মাশওয়ারায় ডাকা হয়।ইন্ডিয়ার ভাই ফারুক ব্যাঙ্গোলোর বললেন আলমী শুরার জন্ম দিনে লিখিত সিদ্ধান্ত ছিল যে আলমী শুরার কেউ ইন্তেকাল করলে তার স্থানে নতুন এক জনকে দিতে হবে।

 

তাদের পূর্বের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী যখন ঘোষনা দিলেন মাওঃ ইয়াকুব সাহেবের স্থলে ভাই ইয়ামিন সাহেব এবং ভাই আবদুল ওয়াহাব সাহেবের স্থলে মাওঃ এহসানুল হক সাহেবকে রাখা হোক।

 

তখন পাকিস্তানের ১৯ জন শুরার মধ্যে থেকে দুই জন ছাড়া বাকি সকলেই এই রায়ের কঠিন বিরোধিতা করেন এবং বলেন আলমী শুরা গঠিত হয় মাশওয়ারা ছাড়া। বন্ধ কামরায় কিছু সাথিদের ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে এই সিদ্ধান্ত হয়। গবং বলা হয় ঐ সিদ্ধান্তের সময় হাজী আব্দুল ওহাব হজরতজী মাওঃ সাদ সাহেব এবং বাংলাদেশের শুরারা অনুপস্থিত ছিলেন।

 

এই আলমী শুরার অস্তিত্ব না আগে কখনো ছিল না বর্তমানে আছে। বর্তমানে অবস্থা খুবই খারাপ।আমরা আমাদের আসল মারকাজ নিজামুদ্দীন এর সাথে বুঝাপড়ার জন্য হজরতজীর সাথে যোগাযোগ করছি আর আপনারা তোড় পয়দা করছেন।

 

ডঃ নাদীম আশরাফ কিছু বলতে চাচ্ছিলেন তখন পাকিস্তানের একজন প্রবীণ মুরুব্বি তাকে চুপ করতেবলেন। তুমিতো মাসিক মাশওয়ার সাথী ও না রোজানা মাশওয়ারার সাথী ও না। যার কারণে ডঃ নাদীম আশরাফ ডঃ সালীম মাওঃ জিয়াউল হক চুপ ছিলেন।

 

মাসিক মাশওয়ার সাথীদের মধ্যে ডঃ রুহুললা ও চোধুরী রফীক এবং মাসিক মাশওয়ার বাইরে মাওঃ খুরশিদ ও মাওঃ আহমাদ বাটলা আলমী শুরার পক্ষে রায় দেন।

 

খোদ ইন্ডিয়ার মাওঃ ইব্রাহিম সাহেব এবং মাওঃ আহমাদ লাট সাহেব ও এই রায়ের ব‍্যপারে এক মত হন নি। এরপর ভাই ইয়ামিন সাহেব আশা পূরণ না হওয়ায় মনে ক্ষোভ নিয়ে উঠে চলে যান।

 

যখন ইন্ডিয়ার ভাই ফারুক দেখলেন ৯৮% শুরা অসন্তুষ্ট এবং আলমী শুরার ব‍্যপারে এক মত না তখন তিনি বললেন ছাড় এ বিষয়ে আলোচনা বন্ধ কর। এই রায়ের পর মজলিসের সমাপ্তি হয় ।

 

Facebook Comment





© All rights reserved © 2019 Tablignewsbd.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com
error: Content is protected !!