রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭:৪০ অপরাহ্ন

সুস্বাগতম মাহে রামাদ্বান

সুস্বাগতম মাহে রামাদ্বান

সুস্বাগতম মাহে রামাদ্বান (পর্ব-১)
মুহাম্মদ নিযামুদ্দীন মিসবাহ:তাবলীগ নিউজ বিডিডটকম

আরবী বর্ষপঞ্জিকার নবম মাসটি হলো মাহে রামাদ্বান। বারো মসের মধ্যে মর্যাদা ও ফযিলতের দিক থেকে এ মাসের গুরুত্ব সর্বাধিক। আল কুরআনে ইরশাদ হচ্ছে, এই সেই রামাদ্বান মাস, যে মাসে কুরআন অবতীর্ণ হয়েছে। যে কুরআন পথ পদর্শনের সুস্পষ্ট বর্ণনা এবং পার্থক্যকারী। সূরা বাকারা আায়াত নং ১৮৫। উল্লেখ্য পবিত্র কুরআন যে সব বিষয়ের সাথে সম্পৃক্ত হয়েছে তাই মহিমান্বিত হয়েছে কুরআনের মহিমায়। রামাদ্বান মাস অন্যান্য মাসের চেয়ে শ্রেষ্ঠ, লাইলাতু কদর অন্য ৩৬৫ রাতের চেয়ে ভিন্ন মর্যাদার, আমাদের নবী সা্ এর মর্যাদা অন্যান্য নবীদের চেয়ে বেশী হওয়া ইত্যাদি সব কিছুই কুরআন সম্পৃক্ততার বদৌলতে। এটা আল্লাহ তায়ালার অমোঘ নির্দেশনা, মানুষের মধ্যে যারা এই কুরআন আঁকড়ে ধরবে মহান আল্লাহ তার মর্যাদা অন্যান্য মানুষের তুলনায় তাকে বাড়িয়ে দেবেন।
রামাদ্বান মানে কী?
আরবী শব্দ রামাদ্বানের মূল বর্ণ রা, মীম, দোয়াদ। রামাদুন। এর অাভিধানিক অর্থ, আগুনে জ্বালিয়ে দেয়া, সূক্ষ্ম ও ধারালো করা, অপেক্ষা করা, রোদে জ্বলসে দেয়া, ব্যথা বা কষ্ট দেয়া, গরমে অতিষ্ঠ করা, উদগারের উপক্রম হওয়া, দুঃখে জ্বলে উঠা, ব্যাধিগ্রস্থ হওয়া ইত্যাদি অর্থে ব্যবহৃত হয়ে থাকে।
একটু ভাবলে রামাদ্বান মাসের সাথে সবগুলো অর্থের মিল খুঁজে পাওয়া যাবে।
যেমন, এই মাস সিয়াম সাধনার মধ্য দিয়েনবান্দার যাবতীয় পাপকে জ্বালিয়ে ভস্ম করে দেয়, এজন্য একে রামাদ্বান বলা হয়।

পবিত্র কুরআনের সূরা বাকারা এর ১৮৩ নাম্বার আয়াতে এ মাসে সিয়াম সাধনার উদ্দেশ্য ও তাৎপর্য বর্ণিত হয়েছে।
তোমাদের উপর সিয়াম ফরজ করা হয়েছে যেমন তোমাদের পূর্ববর্তীদের উপরও ফরজ করা হয়েছিলো, যেনো তোমরা তাকওয়া ও খোদাভীতি অর্জন করতে পারো।
সিয়াম পালনের ফজিলতের পাশাপাশি এর তাৎপর্যও জানতে হবে:
আমরা অধিকাংশ ক্ষেত্রে ফজিলতের আয়াত ও হাদীসগুলোই বেশী শুনে থাকি। ফলে রামাদ্বান এলে আমরা আবেগের বশীভূত হয়ে এমাসে ঠিকঠাক চলি। কিন্তু সিয়াম সাধনা একজন ব্যক্তির জীবনে কাংখিত পরিবর্তন নিয়ে আসেনা। তার অনেকগুলো কারণের একটি কারণ হলো, আমরা সিয়ামের তাৎপর্যটা জানিনা, অনুধাবন করিনা, বাস্তব জীবনের অন্যান্য ক্ষেত্রে রামাদ্বানের শিক্ষা কার্যকর করিনা। যদি কোন মুমিন সিয়ামের তাৎপর্য সঠিকভাবে উপলব্দি করে, নিজের জীবন সে অনুযায়ী পরিচালনা করে, তাহলে একমাসের এই প্র্যাকটিস একদিকে তার অতীতের সমস্ত গুনাহ মাফ করে দিবে, অপর দিকে, ভবিষ্যতেও তাকে সকল প্রকার পাপ পঙ্কিলতা থেকে বেঁচে থাকার শক্তি সামর্থ তৈরী করে দিবে।
এজন্য সিয়াম পালনের ফজিলত বা মর্যাদা অনুধাবন করার পাশাপাশি এর তাৎপর্যও ভালো করে আত্মস্থ করতে হবে।
সিয়ামের তাৎপর্য কী?
চোখ রাখুন আগামী পর্বে।

মুহাম্মদ নিযামুদ্দীন মিসবাহ
লিখক, মুহাদ্দিস,
মারকাযুল উলুম আশ্ শারইয়্যাহ সাভার, ঢাকা।

Facebook Comment





© All rights reserved © 2020 TabligNewsBD.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com