শনিবার, ১৭ অগাস্ট ২০১৯, ১২:৪৭ পূর্বাহ্ন

চাঁদপুরে ইজতেমা বন্ধ করায় এলাকায় উত্তজেনা।।

চাঁদপুরে ইজতেমা বন্ধ করায় এলাকায় উত্তজেনা।।

চাদপুর জেলা প্রতিনিধি, তাবলীগ নিউজ বিডি :চাঁদপুর শহরের পুরাণবাজার পশ্চিম জাফরাবাদ মেঘনা নদীর তীরে ইজতেমা শুরু হওয়ার পর বন্ধ করতে বাধ্য করেছে প্রসাশন। মুসল্লিদের সাথে পুলিশের আচরনে এলাকায় ধর্মপ্রাণ মানুষের মাঝে ব্যাপক অসন্তুষ্টি দেখা দিয়েছে।

গতকাল ১৫ নভেম্বর বৃহস্পতিবার দুপুরে পুরাণবাজার পশ্চিম জাফরাবাদ মেঘনা নদীর তীরে গিয়ে দেখা যায়, ১৫,১৬,১৭ নভেম্বর ইজতেমা শুরু হবার খবর শুনে বিভিন্ন এলাকা থেকে হাজার হাজার তাবলিগ জমায়াতের লোকজন এসে ভিড় জমায়।

তাবলিগ জমায়াতের সাথীরা ইজতেমার মাঠে প্রবেশ করার খবর পেয়ে পুলিশ সুপার জিহাদুল কবিরের নির্দেশে মডেল থানা পুলিশ ও পুরানবাজার ফাড়িঁ পুলিশ মাঠে বেশ কয়েকটি রাস্তায় পাহাড়া দিয়ে তাবলীগ জমায়াতের মুসলিদের ভিতরে ডুকতে বাঁধা দেওয়া হয়। এসময় পুলিশের সাথে তাবলিগ জমায়াতের লোকজনের বাকবিতন্ডার সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশ ইজতেমার মাঠে থাকা মুসল্লিদের মালামাল সড়িয়ে ফেলে দেয়। নামাজরত মুসল্লিদের জায়নামাজ টেনে ফেলে দেয়।

পুলিশ লাইন ও সদর মডেল থানার প্রায় শতাধিক পুলিশ ইজতেমার মাঠে এসে অবস্থান নিয়ে তাবলিগ জমায়াতের লোকজনদের বের করে দেয়।

দুপুরে জোহর নামাজ আদায় করে মুনাজাত শেষে তাবলিগ জমায়াতের লোকজন মাঠে অবস্থান নেয়। এসময় পুলিশের সাথে এলাকার সাধারণ মানুষের কিছু লোকজনের সাথে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার সৃষ্টি হয়। দুপুর ২টা ৩০ মিনিটে চাঁদপুর জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহাম্মেদ ও সাধারন সম্পাদক আবু নঈম দুলাল পাটওয়ারী মাঠে এসে অবস্থান নিয়ে বক্তব্য রেখে তাবলিগ জামায়াতের লোকজনদের বুঝিয়ে অনুরোধ করে মাঠ ত্যাগ করার আবদার করেন।

এসময় তারা তাবলীগ সাথীদের কাছে ওয়াদা করে, বলেন নির্বাচনের পূর্বে চাঁদপুরে আর কোন ওয়াজ মাহফিল করতে দেওয়া হবে না। যা হবে নির্বাচনের পরে করা হবে। আর এই মাঠেই চাঁদপুর ইজতেমা করা হবে। জেলা আওয়ামীলীগ ও পুলিশ প্রশাষন সব ধরনের সহযোগিতা করবে।

পরে ইজতেমার মাঠে সংক্ষিপ্ত বয়ান ও মুনাজাত শেষে তাবলিগের হাজার হাজার সাথী চোখের পানি ফেলে ময়দান ত্যাগ করেন।

ইন্সপেক্টর আবদুল রশিদ ও মনির হোসেন জানায়, চাঁদপুরে তাবলিগ জমায়াতের সাথে কিছু আলেমদের বেশ কয়েকদিন যাবত বিরোধ চলে আসছিলো। তাদের মাঝে হামলার ঘটনা ঘটেছে। তাদের একটি পক্ষ ইজতেমা বন্ধের জন্য জেলা প্রশাষক ও পুলিশ সুপারের কাছে স্বারকলিপি পেশ করে এবং ইজতেমা ঘেরাও করার হুমকী দেয়।পরে প্রশাসন নিরাপত্তার স্বার্থে ইজতেমা বন্ধ করা নির্দেশ প্রদান করে।পুলিশ সুপার জিহাদুল কবিরের নির্দেশে আইনশৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখার লক্ষে পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে।

এসময় মাঠে উপস্তিত তাবলীগ জামাতের বেশ কয়েকজন জানায়, গত বছরের নেয় এবারও দ্বিতীয় বারের মতো এ মাঠে তিনদিন ব্যাপি ইজতেমা অনুষ্ঠিত হবার উদ্দোগ নেওয়া হয়েছে। জেলা প্রসাশনের পক্ষ থেকে ইজতেমা করার অনুমিত দেওয়ার পরেই ইজতেমার প্যান্ডেলের কাজ শুরু হয়। কিন্তুু একটি সুবিধাবাদি স্বার্থন্নেষী মহল নিজেদের স্বার্থ উদ্ধার করার জন্য ইজতেমা বন্ধের জন্য পায়তারা করে। এখানে দেশী-বিদেশী জামাতসহ কয়েক লাখ ধর্মপ্রান মুসল্লিরা সমাগম হবার কথা ছিলো।

উল্লেখ্য, আগামী ২২.২৩ ও ২৪ নভেম্বর এ (৩দিন) চাঁদপুর ইজতেমা অনুষ্ঠিত হবার তারিখ নির্ধারন করা হয়।পরে জাতীয় নির্বাচনের স্বার্থে তারিখ পরিবর্তন করে ১৫,১৬,১৭ নভেম্বর ইজতেমা শুরু করার সিধান্ত নেওয়া হয়েছিলো।

Facebook Comment





© All rights reserved © 2019 Tablignewsbd.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com
error: Content is protected !!