বৃহস্পতিবার, ২২ অগাস্ট ২০১৯, ১২:৪৯ পূর্বাহ্ন

হযরতজী সাদ কান্ধালভীর প্রশান্তিময় তারাবির নামাজ

বিশেষ প্রতিনিধি:তাবলীগ নিউজ নিউজ বিডিডটকম

তারাবীর জামাত প্র‌তি‌দিনই নিজামুদ্দিন মারকা‌জে তাবলীগের বিশ্ব আমীর শায়খুদ দাওয়াত হযরতজী মাওলানা সা’দ কান্ধালভী দামাত বারাকাতুহুমের পিছ‌নে পড়ার সৌভাগ্য হ‌চ্ছে। প্র‌তি‌দিন তি‌নি একাই নামাজ পড়ান। ধী‌রে ধী‌রে তারতী‌লের সা‌থে। দীর্ঘ আড়াই ঘন্টা সময় নিয়ে। ত‌বে এমন তারাবী আর কখনও প‌ড়ি‌নি। তারাবির মাঝো মাঝে কান্নার আওয়াজে মসজিদ ভারী হয়ে উঠে। রুহা‌নিয়্যাত ও প্রশা‌ন্তি‌তে ভরপুর নামাজ।

নিজামু‌দ্দি‌নের ব‌স্তিটা অ‌নেক বড়। আ‌ছে অ‌নেক পুর‌নো মস‌জিদ। পু‌রো এলাকাটাই মুসলমান‌দের আবাদ। এই ব‌স্তি কিন্তু ঢাকার ব‌স্তি না। সংঘবদ্ধ একটা সমাজ ভি‌ত্তিক মহল্লা কে এখা‌নে ব‌স্তি বলা হয়। এই ব‌স্তিবাসী অ‌নেক অ‌ভিজাত। পোস্ট টা অ‌নেক লম্বা হ‌য়ে যা‌বে, তাই ই‌তিহা‌সে যাবনা। একনজর বলব কেবল। মারকাজ মস‌জিদ কে বাংলাওয়ালী মস‌জিদ বলা হয়।

তাবলীগের বিশ্ব মারকাজ মস‌জিদ। তাওহী‌দের বিশ্বব্যাপী আওয়াজ এখা‌নে অযুত প্রা‌ণের ক‌ণ্ঠে উচ্চা‌রিত হয়। গোটা দিল্লী শহ‌রে পল‌কে পল‌কে যেখা‌নে বেগানা নারীর অশ্লীল বিচরণ। এখা‌নে এ‌সে আপ‌নি বুঝ‌তেই পার‌বেন না, এটা ভার‌তের মত কট্রর হিন্দু রা‌ষ্ট্রের অন্তর্গত কোন এলাকা। চা‌রি‌দি‌কে দাঁ‌ড়ি, টু‌পি আর পানজা‌বির বৈ‌শ্বিক মিলন মেলা। ভারতী, বাঙ্গালী, চীনা, আ‌ফ্রিকান, আরব, সাদা কা‌লো, বাদামী সব মি‌লে একাকার।

বাঙ্গলাওয়ালী মস‌জিদের মূলত: কোন গেইট ই নেই। প্র‌বেশ মু‌খে জু‌তোর স্তূপ। চ‌ব্বিশ ঘন্টা লোক ঢুক‌ছে, বের হ‌চ্ছে। মেইন রোড থে‌কে রাস্তা একটাই। চিপা গ‌লির রাস্তার মত। এ রাস্তা দি‌য়ে কেউ না বু‌ঝে শিরক বিদাত কর‌তে মাজা‌রে যা‌চ্ছে, কেউ প‌লেস্তারা খসা শতধা পুর‌নো ভাঙ্গা চোরা মস‌জি‌দে ঢুক‌ছে। সবাই শা‌ন্তি চায়, দু‌নিয়া ও আ‌খিরা‌তের কল্যাণ চায়, কিন্তু আসল কল্যাণ ও শা‌ন্তি কোন প‌থে অ‌নে‌কেই জা‌নেনা।

যাই হোক মূল প্রস‌ঙ্গে আ‌সি। সা’দ সা‌হেব তারাবী‌তে সূরা ইউসুফ পড়‌ছি‌লেন। কুরআন চর্চার সা‌থে যারা জ‌ড়িত, তা‌দের হয়‌তো সবার কা‌ছেই এই সূরার প্র‌তি একটা দুর্বলতা আ‌ছে! আমারও আ‌ছে। এই সুরার আ‌বেদন, মর্ম ও কা‌হিনী মু‌মিনের হৃদয় ছুঁ‌য়ে যায়। আ‌মি খুব খু‌শি হলাম। ভেত‌রে ভেত‌রে একটা আ‌বেগপূর্ণ প্রস্তু‌তি অ‌টো‌মে‌টিক তৈরী হ‌চ্ছি‌লো। নামা‌জে দাঁড়ালাম। কি‌নি কাঁদ‌তে শুরু কর‌লেন। দ্বীনী আ‌ন্দোলন, ঈমানী জজবা ও প‌রিক্ষা, হযরত ইউসুফ আ: এর সীমাহীন ধৈর্য্য ও অ‌গ্নিপ‌রিক্ষার আয়াতগু‌লো উচ্চা‌রিত হ‌চ্ছি‌লো আর কান্নার দমকও বাড়‌ছি‌লো। ……..قال إننما اشكوا بثى و حزنى الى الله কিংবা ولا تقف ما ليس لك به علم ان السمع و البصر والفؤد كل أولاك كان عنه مسؤولا
পড়ার সময় কান্নার রোল প‌ড়ে গেল। চো‌খ ফে‌টে আমারও কান্না আস‌লো। আহ! এমন নুরে জলমল তারাবির নামাজ, যা হৃদয় ছুয়ে যায়, দীল ভরে উঠে প্রশান্তির আভায়।

Facebook Comment





© All rights reserved © 2019 Tablignewsbd.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com
error: Content is protected !!