শনিবার, ২০ Jul ২০১৯, ১২:২০ পূর্বাহ্ন

ইতিহাস সাক্ষি আমীর বিরোধীরা হারিয়ে যাবে!

বিশেষ প্রতিনিধি, তাবলীগ নিউজ বিডিডটকম

যুগে যুগে নিজামুদ্দিন ও ইমারতভিত্তিক দ্বীনী দাওয়াতের বিরোধিতা হয়ছে। দ্বিতীয় হযরতজী ইউসুফ সাহেব (রহঃ) যখন আমির হলেন তখন মাওলানা এহতেশামুল হক যিনি কিনা ‘পুস্তিকা ওয়াহেদ এলাজ’ এর লেখক নিজামুদ্দিন ছেড়ে দিয়ে তাবলীগের নামে নিজে একটা মেহনত শুরু করলেন। নাম দিলেন সহীহ নাহাজে তাবলীগ। কয়েক বছর চলেছে। এরপরে নিশ্চিহ্ন হয়ে গেছে।

তৃতীয় হযরতজী এনামুল হাসান (রহঃ) যখন আমির হন তখন ২২জন মুকিমীন হযরত নিজামুদ্দিন ছেড়ে চলে গেলেন। এসব বিদ্রোহ নতুন কিছু নয়। তবে আমাদের আগের আকাবিরগণ এগুলো ছুপায় রাখতে পেরেছেন। কারণ, তখন সমস্যা একটাই ছিল। আর তা হলো, যারা বেরিয়ে গিয়েছে তাদের বিদ্রোহ। আর এখন যেটা হচ্ছে আমার মনে হয় ইসলামের ইতিহাসে একটা অন্যতম ডিজাস্টার হিসাবে এটা লিখিত থাকবে। এখানে সমস্যা ত্রিমুখী।

মূল ডেস্টিনেশন অফ অ্যাটাক হলেন, মাওলানা সাদ সাহেব। বিস্তারিত বলার জায়গা এটি নয়। এজন্য সংক্ষেপে বলছি। সমস্যা শুরু হয়েছে হযরত মাওলানা জুবায়ের হাসান সাহেবের মৃত্যুর আগ দিয়ে। এটা pre-planned যে ওনার মৃত্যু হয়ে গেলে তিনজনের মধ্যে একমাত্র ফায়সাল হিসেবে সাদ সাহেব বেঁচে থাকেন। অটোমেটিক্যালি উনি আমির হিসেবে থাকবেন। সমস্ত ফায়সালা উনি করবেন এটা হতে দেয়া যাবে না। এজন্য আলমি শুরা গঠন করার চেষ্টা হলো। উদ্দেশ্য ছিলো, উনাকে নিষ্ক্রিয় করা। বলতে পারেন উনাকে নিষ্ক্রিয় করার কারণ কি ?

এই কারণ ব্যাখ্যা করতে গেলে আরো বড় হয়ে যাবে। শুধু ছোট্ট করে বলি, কুরাইশ বংশের হাত থেকে তথা নিজাম উদ্দিনের আহালদের থেকে এই কাজকে জুদা করতে হবে। তাইলেই আসল কামিয়াবী(?) আসবে।
গুটিবাজ এর দল খুব ভালো করে জানতো যে সাদ সাহেব এটা মেনে নিবেন না। এজন্য আক্রমণ দুই ভাবে করা হয়েছে। প্রথম, ওনার বয়ানাতের মধ্যে ভুল ধরো এবং এই মওকায় উপমহাদেশের মুসলিম উম্মার এলমি মারকাজ দেওবন্দকে সাদ সাহেবের বিরুদ্ধে ব্যবহার করো।

দ্বিতীয়, আলমি শুরা মেনে নেয়ার জন্য ওনাকে চাপ সৃষ্টি করতে থাকো। কারণ এমন কথাও শোনা গেছে আমাদের দেশের অনেক বড় একজন মুফতিও বলেছেন, উনি আলমি শুরা মেনে নেক আমরা উনাকে মাথায় তুলে রাখবো। আরেকজন বলেছেন “উনার বয়ানের এই ভুল টুল এগুলো কিছু না উনি শুধু আলমি শুরা মেনে নিক।” তৃতীয় একটা আক্রমণ হয়েছে যেটা আমরা নিজামউদ্দিন এর সাথে কানেক্টেড তারাই জানি উনাকে জানে মেরে ফেলার অনেক চেষ্টা till now অব্যাহত রয়েছে।

চলবে। আরো কিছুদিন তো আলমী শুরার মেহনত চলবে। কারণ অনেক মানুষই তো না বুঝে এখানে যোগ দিয়েছে। তবে একটা কথা বললাম লিখে রাখেন। যে কেউই নিজামউদ্দিন থেকে জুদা হয়েছে সে আর এই কাজের উপর টিকে থাকতে পারে নাই। প্রমাণ – ইতিহাস।

Facebook Comment





© All rights reserved © 2019 Tablignewsbd.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com
error: Content is protected !!