বৃহস্পতিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:০৭ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
হাটহাজারী মাদরাসার সামনে পুলিশের সতর্ক অবস্থান : রুহিকে গনধোলাই কেন হাটহাজারী মাদরাসা ছাত্র আন্দোলনে উত্তাল? হাটহাজারী মাদরাসায় ছাত্রদের বিক্ষোভ ভাঙচুর : কওমীতে নজিরবিহীন ঘটনা ‘তাবলিগের সেই ৪ দিনে যে শান্তি পেয়েছি, জীবনে কখনো তা পাইনি’ তাবলীগের কাজকে বাঁধাগ্রস্থ করতে লাখ লাখ রুপি লেনদেন হয়েছে: মাওলানা সাইয়্যেদ আরশাদ মাদানী দা.বা. (অডিওসহ) নিজামুদ্দীন মারকাজ বিশ্ব আমীরের কাছে বুঝিয়ে দিতে আদালতের নির্দেশ সিরাত থেকে ।। কা’বার চাবি দেওবন্দের বিরোদ্ধে আবারো মাওলানা আব্দুল মালেকের ফতোয়াবাজির ধৃষ্টতা:শতাধিক আলেমের নিন্দা ও প্রতিবাদ একান্ত সাক্ষাৎকারে সাইয়্যেদ আরশাদ মাদানী :উলামায়ে হিন্দ নিজামুদ্দীনের পাশে ছিলেন, আছেন, থাকবেন তাবলীগের হবিগঞ্জ জেলা আমীর হলেন বিশিষ্ট মোহাদ্দিস মাওলানা আব্দুল হক দা.বা.
ভারতে শান্তি ও ঐক্যের আহ্বান জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের

ভারতে শান্তি ও ঐক্যের আহ্বান জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের

কলকাতা প্রতিনিধি, তাবলীগ নিউজ বিডিডটক.

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ জমিয়তে উলামা হিন্দ কলকাতার রবীন্দ্র সদনে শান্তি ও ঐক্যের আহ্বানে সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এ সম্মেলনে দেশে শান্তি, সম্প্রীতি, ঐক্য বজায় রাখার আহ্বান জানিয়েছে জমিয়ত।

 

সম্মেলনে রাজ্যের জনশিক্ষা প্রসার, গ্রহণ দফতরের মন্ত্রী ও জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের রাজ্য সভাপতি মাওলানা সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, প্রকৃত ধর্মে হিংসা-বিদ্বেষ শেখায় না। ভারত সুবিশাল দেশ। এখানে ১৩০ কোটি মানুষে বাস।

 

তিনি বলেন, প্রত্যেক জেলায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পদমর্যাদায় কর্মকর্তা নিযুক্ত করতে হবে যারা গণপিটুনির বিষয়ে নজর রাখবেন। আমরা চাই প্রত্যেক রাজ্যে তাদের বিরুদ্ধে সরকার আইন পাস করুক। যারা ধর্মের নামে সন্ত্রাস সৃষ্টি করছে, রাষ্ট্রের নামে দাঙ্গা করছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইন তৈরি হােক।

 

চৌধুরী সাহেব আরও বলেন, ভারতের সহিষ্ণুতা ঐতিহ্য হুমকির মুখে ঠেলে দিয়েছে। বিধানসভায় মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, আমেরিকার গােয়েন্দা রিপোর্টে বলছে তারা সব থেকে বড় সন্ত্রাসী দল! এটা আমার আপনার রিপাের্ট নয়, এটা পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ গােয়েন্দাদের রিপাের্ট। দেশের যে কতখানি ক্ষতি তারা করেছে সেই দিকে কর্নপাত নেই তাদের।

 

সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী স্বাধীনতা আন্দোলনে জমিয়তের হিন্দের ভূমিকার কথা উল্লেখ করে বলেন, জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ ভারতের প্রাচীণ দায়িত্বপূর্ণ সংগঠন। নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসুর তাইপাে শিশির বন্ধু বলেছিলেন, জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ আন্দোলনের ডাক না দিলে ভারতের স্বাধীনতা একশ বছর পিছিয়ে যেত। ১৯৪৭ সালে ভারত স্বাধীন হত না।

 

তিনি বলেন, আমরা ভারতকে ভালোবাসি! আমরা মৃত্যুর পরেও এখানকার মাটিতে কয়েক হাত নিচে শুয়ে থাকবো। মারা যাওয়ার পরেও আমরা ভারতকে ছেড়ে যাই না। আমার আমাদের ইমান নিয়ে আমাদের অধিকার নিয়ে এখানে বেঁচে থাকতে চাই।

 

সম্মেলনে কেন্দ্রীয় জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের সাধারণ সম্পাদক হজরত মাওলানা মাহমুদ মাদানি, কাতার ঐতিহ্যবাহী রেড রোডের ইমাম, বিশিষ্ট আলেম ফজলুর রহমান, বৌদ্ধ ভিক্ষুক, খ্রিস্টান পাত্রি ,পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যা লঘু সেলের সভা কমিটির সদস্য  জমিয়তের বহু বিশিষ্ট ব্যক্তি উপস্থিত ছিলেন সম্মেলনে।

Facebook Comment





© All rights reserved © 2020 TabligNewsBD.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com