রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ০৪:৪৯ পূর্বাহ্ন

পথে পথে ট্রেন আটকিয়ে যার বয়ান শুনলো ভারতবাসী। ভিডিও সহ

পথে পথে ট্রেন আটকিয়ে যার বয়ান শুনলো ভারতবাসী। ভিডিও সহ

মাওলানা আবদুর রহমান; দিল্লী থেকে। তাবলীগ নিউজ বিডিডটকম।

আজ দিল্লী থেকে তামিল নাড়ু যাওয়ার পথে অবাক করা কাণ্ড দেখলো বিশ্ববাসী। যাদের ভারতীয় রেল সম্পর্কে জানা আছে তারা ভালো করেই জানেন যে, দিল্লীর ট্রেনগুলো কতটা সময়ানুবর্তী। ষ্টেশন থেকে ছাড়া ও ষ্টেশনে পৌঁছা কিংবা কোন ষ্টেশনে দাঁড়ানোর ক্ষেত্রে একটি মিনিটও হেরফের হয় না। এতদসত্বেও সেই ট্রেনকে ভারতবাসী প্রতিটি ষ্টেশনে আজ থামিয়ে দিলো ১০-১৫ মিনিট করে। সৃষ্টি হলো ইতিহাসের এক নতুন বাঁক। ভারতীয় ইতিহাসে এই বিরল ঘটনার জন্ম দিলেন ক্ষণজন্মা এক মুসলিম মনিষী।

যাকে এক নজর দেখার জন্য কিংবা তার দু’টি কথা শোনার জন্য ভারতের আপামর মুসলিম জনতা ভীড় জমিয়েছে ‘ইশটিশনে’। ট্রেন আসতেই চারদিক থেকে মৌমাছির মত ঘিরে ধরেছে জনতা। পূর্ব থেকেই মাইক লাগিয়ে রেখেছিলো পুরো ষ্টেশনজুড়ে। তাওহীদী জনতার এই আবেগের কাছে অসহায় হয়ে পড়েছিলো ভারতের রেল কতৃপক্ষ ও রাজ্য সরকার।

আজ ২৫ তারিখ রোজ শুক্রবার দিল্লীর নিজামুদ্দীন বিশ্ব মারকায থেকে তাবলীগের বিশ্ব আমীর শায়খুল ইসলাম ওয়া শায়খুদ দাওয়াহ, শায়খুল হাদীস আল্লামা সাদ কান্ধলভী যাচ্ছিলেন তামিল নাড়ুর ইজতেমায়। আগামী ২৬, ২৭, ২৮ জানুয়ারীতে অনুষ্ঠিতব্য তামিল নাড়ুর ‘আলমী ইজতেমা’তে অংশ নিতে ভারতবাসীর ‘হযরতজ্বী’ যাচ্ছিলেন সে পথে।

তিনি আজ এমন একটি আসনে আসীন রয়েছেন, যা গোটা ভারত নয় শুধু, পুরো মুসলিম বিশ্বের এক ‘মুকুটহীন বাদশাহ’। যার প্রতিটি কথা হয় গ্রন্হিত। যাকে এক নজর দেখার জন্য মানুষ দেশ থেকে দেশান্তরে পাড়ি জমায়। যাকে দেখে বদলে যায় লক্ষ-কোটি বনী আদমের জীবন। যার চলাফেরায় সাহাবাদের সীরাত ভেসে ওঠে। যার জন্মের পর আপন দাদা দ্বিতীয় হযরতজ্বী মাওলানা ইউসুফ রাহিমাহুল্লাহ বলেছিলেন, “আজ আমার বদল (বিকল্প) দুনিয়াতে এসে গেছে্”। যার শৈশবে তৃতীয় হযরতজ্বী ইনামুল হাসান রাহিমাহুল্লাহ বলতেন “এই ছেলে একদিন কথা বলবে। আর সারা দুনিয়া তার কথা শুনবে”।

আল্লাহ ওয়ালাদের ভবিষ্যতবাণীগুলো আজ অক্ষরে অক্ষরে বাস্তরে রূপান্তরিত হচ্ছে। তার প্রতি ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে মানুষের প্রেম-ভালোবাসা ও আগেব-উচ্ছাস তাকে কিংবদন্তীর মর্যাদায় সমাসীন করেছে। যা আজ আবারো প্রমাণিত হলো। দিল্লী থেকে আল্লামা সাদ কান্ধলভী তামিল নাড়ু যাওয়ার পথে প্রতিটি ষ্টেশনে ভারতবাসী তার কথা শোনার জন্য ভীড় জমায়। বাধ্য হয়ে রেল কতৃপক্ষ সেখানে ট্রেন দাঁড় করিয়ে ট্রেনের দরজা থেকে মুসলিম জনতার উদ্দেশ্যে তাকে বয়ান করার সুযোগ করে দেন। এভাবে চলতে চলতে তিনি তামিল নাড়ুতে পৌঁছেন। ট্রেনে থাকা দিল্লীবাসীর অনেকেই বলেছেন, ভারতীয় উপমহাদেশের ইতিহাসে কোন মুসলিম মনীষার জীবনে এমন নজিরবিহীন ঘটনা বিরল। একজন ব্যক্তির জন্য থেমে যায় ট্রেন। থমকে যায় জনপদ। আবেগে উথলে উঠে মুসলিম উম্মাহ।

Facebook Comment





© All rights reserved © 2020 TabligNewsBD.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com