শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল ২০২১, ১১:২১ অপরাহ্ন

আদব-বেয়াদব তত্ত্ব; প্রসঙ্গঃ মাওলানা মু’আয বিন নূর

আদব-বেয়াদব তত্ত্ব; প্রসঙ্গঃ মাওলানা মু’আয বিন নূর

তাবলীগ নিউজ বিডিডটকম

মাওলানা মু’আয বিন নূরের স্পষ্টবাদিতা, সাহসী উচ্চারণ ও শক্তিশালী যুক্তির অকাট্যতায় পরাজিত হয়ে অনেকে অভিযোগ করছেন, তিনি নাকি ‘বেয়াদব’।

এ ব্যাপারে প্রশ্ন করলে মাওলানা মু’আয বিন নূর বলেনঃ “সমস্যাটা আমার ব্যক্তিত্বে নয়, আমার নামে। আমার বাবা তিন জন বিশিষ্ট সাহাবীর নামে আমার নামকরণ করেছিলেন।

১. মু’আয বিন জাবাল

২. মু’আয বিন আফরা

৩. মু’আয বিন আমর

প্রথমজন ছিলেন সাহাবাদের গ্র‍্যান্ড মুফতি।

দ্বিতীয়জন ছিলেন, জাহিলী যামানার সবচেয়ে বড় বিদ্বান ‘আবুল হিকাম’ উপাধিপ্রাপ্ত আবু জেহেলের উপর আক্রমণকারী।

তৃতীয় জন হলেন, আবু জেহেলের হত্যাকারী।

প্রথম সাহাবীর নামের বরকত লাভের আশায় আমি আমৃত্যু সাধনা চালিয়ে যাবো, ইনশা আল্লাহ। তবে আলহামদুলিল্লাহ, দ্বিতীয় ও তৃতীয় সাহাবীর নামের বরকত আমি জন্মগতভাবেই পেয়েছি। স্বভাবে শান্ত ও নিরীহ প্রকৃতির হলেও ছোটকাল থেকেই আল্লাহ তা’আলা অন্যায়ের ব্যপারে সদাসর্বদা আমাকে সোচ্চার ও কঠোর রেখেছেন। ফালিল্লা-হিল হামদু আওয়ালান ওয়া আ-খিরা।

এরই ধারাবাহিকতায় বর্তমান যামানার বঙ্গীয় ‘আবুল হিকাম’ এর ব্যপারে আরো চার মাস আগে কঠোর ভাষায় উম্মতকে হুশিয়ার করেছি, আলহামদুলিল্লাহ।

প্রত্যেক যুগে যারা ‘শ্রেষ্ঠ জ্ঞানী’ উপাধি লাভ করেও ‘হক’ চিনতে ভুল করে এবং উম্মতের মাঝে বিভ্রান্তি ছড়িয়ে ফেতনা উষ্কে দেয় তাদেরকেই ‘যুগের আবুল হিকাম’ বলা হয়। বঙ্গীয়রা যাকে বোকার মত ‘সবচেয়ে বড় আলেম’ মনে করে থাকে।

এবার আসি ‘বেয়াদব’ প্রসঙ্গে। আচ্ছা, বলুন তো, বৃদ্ধ আবু জেহেল কি কিশোর সাহাবী মু’আয রাযিয়াল্লাহু আনহুর চেয়ে বয়সে ছোট ছিলেন নাকি বড়? তাহলে বয়সে বড় আবু জেহেলকে আক্রমণ করাটা কি ছোট্ট মু’আযের জন্য ‘বেয়াদবী’ নয়?

হ্যাঁ, এটাই আমার জবাব। যালিমের বিরুদ্ধে সাহসিকতার সাথে ‘সত্য’ উচ্চারণ করা ‘বেয়াদবী’ নয়, বরং হাদিসের ভাষ্যমতে ‘জিহাদে আকবার’।

আলহামদুলিল্লাহ, আমি কখনো কোন হক্কানি আলেমকে ছোট নজরে দেখিনি। আমি কথা বলে যাচ্ছি ভণ্ড ও লেবাসধারীদের বিরুদ্ধে। তারপরও যারা বুঝতে ভুল করছে তারা আল্লাহ প্রদত্ত ‘ফিক্বহুদ্দীন’ তথা দ্বীনের প্রকৃত মেজায বুঝতে অক্ষম, বঞ্চিত।

আশা করি, বিষয়টি পরিষ্কার হয়েছে।”

প্রিয় পাঠক! শয়তানও অনেক বড় বিদ্বান, জ্ঞানী ছিলো ও আছে। তাই বলে কি সে সম্মানের যোগ্য? তার ব্যপারে উম্মতকে সতর্ক করলে কি বেয়াদবী হবে? তাহলে যারা ‘বেয়াদব জুজু’র ভয় দেখিয়ে উম্মতকে অন্ধকারে রেখে লুটেপুটে পকেট মেরে খাচ্ছে তারা কি শয়তানের প্রতিনিধি নয়?

সময় হয়েছে। চলুন, সোচ্চার হই। এদের হাত থেকে আল্লাহর দ্বীনকে রক্ষা করতে ঐক্যবদ্ধ হই। শুধু দমন নয়, শক্ত হাতে এদেরকে সর্বশান্ত করতে না পারলে ভূলুণ্ঠিত হবে আল্লাহর দ্বীন।

আল্লাহই আমাদের জন্য যথেষ্ট ও তিনিই শ্রেষ্ঠ সহায়।

Facebook Comment





© All rights reserved © 2020 TabligNewsBD.Com
Design & Developed BY PopularServer.Com